নয়াদিল্লি: এবার শিল্পমহলের দ্রুত কাজ শুরু করা দরকার এবং লগ্নির পরিমাণ বাড়িয়ে করোনা ভাইরাসের কারণে যে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে তা থেকে বেরিয়ে আসা দরকার। শিল্পমহলের সামনে বুধবারএমনই অভিমত প্রকাশ করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মালা সীতারমন। যদিও শিল্পমহলের বক্তব্য, বর্তমান পরিস্থিতি চাহিদা তলানীতে এবং আরও বেশ কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি তারা।

সীতারামন বণিক সভা সি আই আই-এর কর্তাদের সঙ্গে ভার্চুয়াল কনফারেন্স করেন। বোঝার চেষ্টা করেন‌ কেন্দ্রের দেওয়া আর্থিক প্যাকেজ সম্পর্কে এদের মনোভাব। ওই সময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন অর্থ মন্ত্রকের পাঁচ সচিব সহ মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা। কোম্পানি বিষয়ক সচিবও ওই আলোচনায় যোগ দেন।

সি আই আই সদস্যরা চাহিদার অভাবের কথা বলে গরিব মানুষদের জন্য সরাসরি নগদ দেওয়ার জন্য সওয়াল করেন। পাশাপাশি বেশ কিছু ক্ষেত্রে সংস্কারের কথা বলেন যেমন- পর্যটন, গাড়ি, বিমান পরিবহন ইত্যাদি। ওই আলোচনায় চাকুরীর সুরক্ষা, চাহিদা বৃদ্ধির পাশাপাশি বড় শিল্প গুলিকে বাঁচাতে যেসব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হচ্ছে সেই সব প্রসঙ্গ তোলা হয়। অন্যদিকে কেন এই আর্থিক প্যাকেজে বড় শিল্পের দিকে নজর দেওয়া হয়নি তার জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছে।

এই আলোচনায় উঠে আসে শ্রমিক সমস্যার কথা। বিশেষত লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক তাদের কাজের শহর ছেড়ে পাড়ি দিয়েছে নিজের গ্রামের বাড়ির দিকে। এক্ষেত্রে রাজ্য সরকারগুলির মধ্যে একটা সমন্বয় দরকার এবং কাজের সময় যাতে ওইসব শ্রমিকরা তাদের কর্মস্থলে থাকতে পারে‌ তার জন্য ব্যবস্থা নেওয়ার কথা তুলেছেন ওই বণিকসভার এক সদস্য। অন্যদিকে সীতারামন শিল্পমহলকে শ্রমিকদের সঙ্গে নতুন করে এমন সম্পর্ক তৈরির কথা বলেছেন যাতে তা সকলের পক্ষে গ্রহণযোগ্য হয়।

এদিকে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন শিল্পমহলকে আশ্বাস দিয়েছেন, পরিকাঠামোয় সরকারি খরচ বাড়াতে ন্যাশনাল ইনফ্রাস্ট্রাকচার পাইপলাইন-এ জোর দেওয়া হচ্ছে। তাছাড়া আগামী পাঁচ বছর ‌ পরিকাঠামোয় সরকার যে ১০০ লক্ষ কোটি টাকা খরচ করবে তার তালিকা তৈরি করছে। ‌ মন্ত্রীর অভিমত, এর ফলে বাজারে চাহিদা বাড়বে এবং অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV