শ্রীনগর: উপত্যকায় নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে৷ নৌহাট্টা, খানয়ার, জাদিবাল, ক্রালখুদ, মাইসুমা, এমআর গঞ্জ, বাটমালু এবং শহিদগঞ্জের পুলিশ স্টেশন গুলিকে সতর্ক করা হয়েছে৷

সূত্রের খবর, শনিবার গভীর রাতে ভারতীয় সেনার গুলিতে প্রাণ হারান উপত্যকার দুই স্থানীয় বাসিন্দা৷ ঘটনাটি ঘটেছে সোপিয়ানে৷ পুলিশের কনভয়ের উপর হামলা চালায় বিচ্ছিন্নতাবাদীরা৷ পাথর ছুঁড়তে শুরু করে৷ এরপরই সেনার সঙ্গে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের লড়াই শুরু হয়৷ বিচ্ছিন্নবাদীদের রুখতে গুলি ছুঁড়তে শুরু করে ভারতীয় সেনারা৷ আর সেই গুলির আঘাতে প্রাণ হারান দুই স্থানীয় বাসিন্দা আর পাঁচজন গুরুতর আহত হন৷ এমনটাই অভিযোগ উঠছে৷

এই ঘটনার ফলে যাতে অপ্রীতিকর কোনও পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সেই কারণে নিরাপত্তার উপর বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে৷ কড়া পুলিশি প্রহরায় ঘিরে ফেলা হয়েছে ওই এলাকাগুলি৷ ইন্টারনেট পরিষেবাও সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ পাশাপাশি বানিহাল থেকে বারমুল্লা অবধি ট্রেন চলাচলও আজকের জন্য স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে৷

ইন্দো-পাক সীমান্তের পরিস্থিতি সম্প্রতি বারুদের স্তুপের উপর দাঁড়িয়ে রয়েছে৷ পাক রেঞ্জার্সদের অহরহ গুলিবর্ষণে উত্তপ্ত সীমান্ত৷ ভারতীয় সেনাও তার পাল্টা জবাব দিচ্ছে৷ কিন্তু সীমান্ত লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দাদের পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ৷ দু’তরফের গুলিবর্ষণে প্রাণ হারান স্থানীয় বাসিন্দারা৷