মুম্বই: একরকম ভাবা হচ্ছিল কিন্তু করোনা ভাইরাস সবকিছু কেমন ওলট পালট করে দিচ্ছে। বৃহস্পতিবার রিজার্ভ ব্যাংক তার ঋণ নীতি সংক্রান্ত রিপোর্টে ‌ দেশের সার্বিক অর্থনীতি নিয়ে সতর্কবার্তা দিয়েছে। মনে করা হচ্ছে লকডাউনের জেরে এদেশের অর্থনীতির ক্ষত আরও গভীর হবে। ধাক্কা খাবে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি।

দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আক্ষেপ যখন ২০২০-২১ সালে বৃদ্ধি হতে পারে বলে ইঙ্গিত মিলছিল ঠিক তখনই আবার করোনাভাইরাস এমন হয় মাথা চাড়া দিল যে সব হিসেব বদলে দিতে থাকল। অর্থনীতির ঝিমুনি কাটাতে সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ নিলেও তাতে জল ঢেলে দিচ্ছে এ করোনা।

গত কয়েকদিন ধরেই নানা সংস্থাকে ভারতের অর্থনীতি সংক্রান্ত বেশ কিছু পূর্বাভাস‌ এবং পরিসংখ্যান দিতে দেখা গিয়েছে। যা আগামী দিন সম্পর্কে আশঙ্কা বাড়িয়েছে। এবার রিজার্ভ ব্যাংকের রিপোর্টে তারই প্রতিফলন দেখা গেল। করোনা যাতে ছড়িয়ে না পড়ে ‌ তার জন্য লকডাউন ঘোষণা হয়েছে। আর তারই জেরে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে সব রকম কাজকর্ম। বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক সংকট দেখা দিয়েছে এর প্রভাব ভারতেয় আছড়ে পড়ছে। ‌

তবে ভারতের অর্থনীতি ধাক্কা খেলেও তা কতটা সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু বলা হয়নি।‌ যদিও বলা হয়েছে যা পরিস্থিতি তাতে বৃদ্ধির হারের কোনরকম পূর্বাভাস দেওয়া কঠিন। ‌ যেভাবে জন জীবন‌ ব্যবসা বণিজ্য থেমে গিয়েছে তাতে বিশ্বজুড়ে আর্থিক বৃদ্ধির বদলে সংকোচনের আশঙ্কা করা হচ্ছে। মন্দা আর অনিশ্চয়তা গ্রাস করছে বিশ্বের অর্থনীতিকে। ভারত এর প্রভাবমুক্ত নয়। একের পর এক আসা রিপোর্ট বৃদ্ধির হিসেবটাকে বারবার বদলে দিচ্ছে।

তবে করোনা প্রতিরোধ করে ফের যখন স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরবে ভারত তখন এদেশের অর্থনীতি ও স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে বলেই আশা করছে রিজার্ভ ব্যাংক। তবে নির্দিষ্ট করে সেটা কবে তা জানাতে পারেনি ওই রিপোর্ট। এদেশে করোনার থাবা স্পষ্ট আর ফের ঘুরে দাঁড়ানোটা নির্ভর করছে এই ভাইরাসকে কত তাড়াতাড়ি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে এবং চারপাশটা স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরানো যাবে তার উপর বলে মনে করা হচ্ছে।