প্রতীকী ছবি

প্যান কার্ড বর্তমানে আমাদের কাছে খুবই প্রয়োজনীয় একটি নথি। বিভিন্ন জায়গায় আমাদের প্যান কার্ডের প্রয়োজন হয়। এটা ছোট এবং খুব সহজেই মানিব্যাগ বা পার্স ব্যাগে জায়গা করে নিতে পারে। আপনি যদি আপনার প্যান কার্ডটি হারিয়ে ফেলে থাকেন, নষ্ট করে থাকেন বা যদি আপনার প্যান কার্ডের আরও একটি কপি তৈরি করতে চান, তবে এখন তা সম্ভব। আর এর জন্য আপনার খরচ হবে মাত্র ৫০ টাকা।

আয়কর দপ্তরের UTIITSL এবং NSDL-TIN এই দুই এজেন্সির মাধ্যমে প্যান কার্ড প্রকাশ করা হয়। আপনি চাইলে এই দুটি এজেন্সির কাছ থেকে আপনার প্যান কার্ডটি পুনরায় প্রিন্ট করতে পারেন।

এর জন্য আপনাকে গুগুল-এ গিয়ে UTIITSL অথবা NSDL-TIN লিখে এই দুই এজেন্সির ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। সেখানে ‘রিপ্রিন্ট প্যান কার্ড’ বলে একটি অপশন পাবেন। এই পদ্ধতি ব্যবহার করলে আপনার বাড়ির দরজায় পৌঁছে যাবে আপনার প্যান কার্ড। তবে খেয়াল রাখবেন, এর মাধ্যমে শুধুমাত্র প্রিন্ট করতে পারবেন কিন্তু কোনওভাবেই এখানে কিছু তথ্য বদলানোর নেই।

আরও পড়ুন – জেনে রাখুন: PayTM বা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে কীভাবে বিচ্ছিন্ন করবেন আধার কার্ড

UTIITSL অথবা NSDL-TIN দুটি কোম্পানিই ভারতের যেকোন জায়গায় এই রি প্রিন্ট প্যান কার্ড পৌঁছে দেয় মাত্র ৫০ টাকায়। ভারতের বাইরে হলে সেক্ষেত্রে ডেলিভারি চার্জ বেড়ে দাঁড়ায় ৯৫০ টাকা। এই রি প্রিন্ট প্যান কার্ডটি আপনি বাড়িতে বসেই পেয়ে যাবেন। আয়কর দপ্তরে যে ঠিকানা নথিভুক্ত আছে, সেখানেই পৌঁছে যাবে রি প্রিন্ট প্যান কার্ড।

এই রি-প্রিন্টের জন্য আবেদন করতে হলে আপনাকে দিতে হবে আপনার প্যান নম্বর এবং জন্ম তারিখ। এর পাশাপাশি আধার কার্ডের নম্বরও দিতে হবে আপনাকে। কারণ এই মুহূর্তে আধার প্যান লিঙ্ক করা আবশ্যক।

আয়কর দপ্তরের নতুন নিয়ম অনুসারে, রি-প্রিন্ট পাওয়ার সময় আপনার প্যান কার্ডের হার্ড কপির প্রয়োজন হয় না। একটি সফট কপিও ঠিকঠাক কাজ করে, তবে এটি কোনও স্ক্যান করা যেন না হয়।

এছাড়াও নতুন ও পুরানো উভয় প্যান কার্ডধারীদেরকেই ই-প্যান কার্ড দেওয়া হয়। আয়কর বিভাগের দেওয়া পিডিএফ ফাইলটি প্যান কার্ডের আসল কপির সাথে সমানভাবে বিবেচনা করা উচিত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।