নিউ ইয়র্ক: আবার ঘটছে সেই ঘটনা। এই ঘটনা নতুন নয়। আগেও হয়েছে একাধিকবার। আবারও ভিনগ্রহ থেকে আসছে রেডিও সিগন্যাল। বিজ্ঞানের ভাষায় যাকে বলে ‘ফাস্ট রেডিও বার্স্টস’।

এলিয়েন বা ভিনগ্রহের প্রাণী নিয়ে একাধিক সময়ে একাধিক রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা। আবারও এই নিয়ে চাঞ্চল্যকর একটি তথ্য প্রকাশ্যে এনেছেন বিজ্ঞানীরা। তাঁরা জানিয়েছেন কয়েক যোজন আলোকবর্ষ দূরে থাকা কোনও ছায়াপথ থেকে ক্রমাগত সংকেত আসছে পৃথিবীতে। মহাকাশ গবেষণার ব্যবহৃত শক্তিশালী টেলিস্কোপে ধরা পড়েছে সেই সঙ্কেত।

কোথা থেকে আসছে এই সঙ্কেত এই নিয়ে প্রবল আগ্রহী বিজ্ঞানীরা। সেই ছায়াপথে কী পৃথিবীর মতোই গ্রহ রয়েছে। সেখানেও কী কোনও প্রাণীর অস্তিত্ব রয়েছে। তাহলে কী ভিনগ্রহীদের অস্তিত্ব রয়েছে। এই নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। ২০১৭ সাল প্রথম এই ধরনের একাধিক সঙ্কেত ধরা পড়েছিল টেলিস্কোপে।

বছর দুয়েক আগে যেসব সিগন্যাল আসছিল তার মধ্যে ২টি সঙ্কেত ক্রমাগত আসছে ২০১৭ সাল থেকে। প্রাথমিক গবেষণায় বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, এই সঙ্কেত আসছে আমাদের ছায়াপথের পাশের কোনও ছায়া পথ থেকে। যদিও তার দূরত্ব কয়েক যোজন আলোকবর্ষ।

গত জানুয়ারিতে এরকমই এক রহস্যময় রেডিও সিগন্যালের সন্ধান পান বিজ্ঞানীরা। কানাডার এক টেলিস্কোপে ধরা পড়ে সেই অদ্ভুত রেডিও সিগন্যাল। কোনও এক দূরের গ্যালাক্সি থেকে সেই সিগন্যাল এসেছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যদিও ওই রেডিও সিগন্যালের সঠিক উৎস ও ধরন সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত নন তাঁরা।

১৩টি রেডিও বার্স্ট শোনা গিয়েছিল সেবার। একই উৎস থেকে একাধিক বার সেই সিগন্যাল আসছিল বলে জানা গিয়েছে। অন্তত ১৫০ কোটি আলোকবর্ষ দূর থেকে সেই শব্দ শোনা যায়।

FRB হল এক ক্ষুদ্র আকারের রেডিও সিগন্যালের ঝলক। এখনও পর্যন্ত গবেষকরা মোট ৬০টিরও বেশি FRB চিহ্নিত করতে পেরেছে। এর মধ্যে কয়েকটি রিপিট বা পুনরাবৃত্তি হয়েছে। বিজ্ঞানীরা মনে করেন, প্রত্যেক দিন আকাশে কয়েক হাজার FRB ঝলকায়। তার নানা রকমের কারণ আছে। হতে পারে , কোনও নিউরন স্টার খুব জোরে ঘুরছে। হতে পারে, দুটি নিউরন স্টার একসঙ্গে মিশে যাচ্ছে। আবার এলিয়েনদের উপস্থিতির কথাও একেবারে উড়িয়ে দিতে পারেন না গবেষকরা।