প্রতীকি ছবি

ঢাকা; বাংলাদেশের মাটিতে বড় বিনিয়োগ রিলায়েন্সের। নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে এলএনজিভিত্তিক ৭১৮ মেগাওয়াট কম্বাইন সাইকেল বিদ্যুৎকেন্দ্র বানাতে চলেছে রিলায়েন্স গ্রুপ। রিলায়েন্স বাংলাদেশ এলএনজি অ্যান্ড পাওয়ার লিমিটেড নামের এই কোম্পানি আগামী ২২ বছর ওই কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করবে। ইতিমধ্যে এই বিষয়ে চুক্তিও হয়েছে। রবিবার ঢাকার বিদ্যুৎ ভবনে বাস্তবায়ন চুক্তি, জ্বালানি সরবরাহ ও বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি হয়।

বিদ্যুৎ বিভাগের পক্ষে যুগ্ম সচিব শেখ ফয়েজুল আমিন, পিডিবির সচিব সাইফুল ইসলাম আজাদ, পিজিসিবির সচিব মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আজাদ, তিতাসের সচিব মাহমুদর রব এবং রিলায়েন্স বাংলাদেশ এলএনজি অ্যান্ড পাওয়ারের পক্ষে কোম্পানিটির পরিচালক সমীর কুমার গুপ্ত চুক্তিপত্রে সই করেন। চুক্তি অনুযায়ী, আগামী তিন বছরের মধ্যে এই বিদ্যুৎকেন্দ্র উৎপাদন উপযোগী করবে রিলায়েন্স। উৎপাদিত ৪০০ ভোল্টের বিদ্যুৎ পিজিসিবির মেঘনা ঘাট সাব স্টেশন হয়ে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে।

জানানো হয়েছে যে, প্রতি ডলার ৮০ টাকার সমতুল্য বিবেচনায় রিলায়েন্সের কাছে ৭ দশমিক ২৬২৫ ডলার/এমএমবিটিইউ দরে গ্যাস বা এলএনজি সরবরাহ করবে তিতাস গ্যাস। আর উৎপাদিত বিদ্যুৎ প্রতি ইউনিট ৭ দশমিক ৩১২৩ সেন্ট বা ৫ টাকা ৮৪ পয়সা দরে পিডিবির কাছে বিক্রি করবে রিলায়েন্স।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেন, ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর সরকার জনগণের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণে স্বল্প মেয়াদে ছোট ছোট বিদ্যুৎকেন্দ্রের দিকে গুরুত্ব দিয়েছিল। বর্তমানে দেশ বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। তাই সরকার বড় বড় বিদ্যুৎকেন্দ্রে নির্মাণে হাত দিয়েছে। সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বলানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যেই কৌশল নিয়ে হাঁটতে তাতে ভবিষ্যত প্রজন্ম এনিয়ে গর্ব করবে বলেও আশা করেন তিনি।

অন্যদিকে রিলায়েন্সের বড় এই বিনিয়োগে বিপুল কর্মসংস্থান হবে বলেও মনে করা হচ্ছে।