নয়াদিল্লি: দেশ জুড়ে ২১ দিনের লক ডাউনে যাতে গ্রাহকদের কোন অসুবিধা না হয় সেই কারণে পদক্ষেপ নিল একাধিক নেটওয়ার্কিং কোম্পানি। কারণ এই লক ডাউনে সব থেকে বেশি সমস্যার মধ্যে পরেছেন দৈনিক মজুরির শ্রমিকেরা এছাড়া নিম্নবিত্ত পরিবারের সদস্যরা। আর এই মুহূর্তে জনপ্রিয় টেলিকম কোম্পানি জিও, ভোডাফোন, এয়ারটেল, বিএসএনএল তাদের গ্রাহকদের সুবিধার্থে নিয়েছে এক নতুন পদক্ষেপ। এই সকল টেলিকম কোম্পানি তাদের প্রিপেড প্ল্যানের বৈধতা বাড়িয়ে দিয়েছে ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত। এছাড়া তাদের তরফ থেকে নিম্নবিত্ত গ্রাহকদের অতিরিক্ত ১০ টাকার টক টাইমের সুবিধা দেওয়া হবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের কারণে হওয়া লক ডাউনের জেরে সমস্যার মধ্যে পরেছেন সাধারণ মানুষ। এর আগে জিও সাধারণ মানুষদের জন্য নিয়ে এসেছিল আকর্ষণীয় সুবিধা। আনা হয়েছিল এ টি এম রিচার্জ পদ্ধতিও। যাতে এই মুহূর্তে কোন দকানে গিয়ে লাইনে না দাঁড়াতে হয়। আর সেই পথে হেঁটে এবারে বাকি সকল সংস্থা নিজের মোট করে গ্রাহকদের সাহায্য করার জন্য এগিয়ে এল। এছাড়া বর্তমানে ইন্টারনেট ছাড়া থাকা একদমই অসম্ভব। আর এই লক ডাউনের জেরে অধিকাংশ কোম্পানি তাদের কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজের অনুমতি দিয়েছে। তাই ইন্টারনেট নির্ভরতা বেড়েছে অনেকটাই। সেই কারণে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সকল নেটওয়ার্কিং সংস্থার পক্ষ থেকে।

নেটওয়ার্কিং সংস্থার মধ্যে এয়ারটেল সর্ব প্রথম সংস্থা যারা এই দুঃসময়ে তাদের গ্রাহকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য পদক্ষেপ গ্রহন করেছিল। এয়ারটেল তাদের প্ল্যানের ভ্যালিডিটি ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে কোন গ্রাহকের প্ল্যানের সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও খুব একটা অসুবিধা হবে না। এছাড়াও নিম্ন মধ্যবিত্ত গ্রাহকদের জন্য ১০ টাকার অতিরিক্ত টক টাইমের পরিষেবাও প্রদান করবে।

এছাড়া এই জটিল সময়ে জিও তাদের গ্রাহকদের জন্য নিয়ে এসেছে একাধিক সুবিধা। এই সময়ে যাতে রাস্তাতে বেরতে না হয় সেই কারণে তারা ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত গ্রাহকদের ১০০ মিনিট টক টাইম এবং মেসেজের পরিষেবা দিয়েছে। এছাড়াও তারা জানিয়েছে নির্দিষ্ট সময়ের আগে যদি প্ল্যানের মেয়াদ শেষ হয়েও যায় সে ক্ষেত্রেও কোন অসুবিধা নেই কারণ ইন কামিং কল ফোনে ঢুকবে।

ভোডাফোনের তরফ থেকেও গ্রাহকদের জন্য নেওয়া হয়েছে একাধিক পদক্ষেপ। তাদের তরফ থেকেও জানানো হয়েছে গ্রাহকদের অতিরিক্ত টকটাইম তারা দেবে। যাতে এই মুহূর্তে কারোর কোন সমস্যা না হয়। আর লক ডাউনের জেরে অতিরিক্ত আরও মোবাইল নির্ভর হওয়ার কারণে এই পদক্ষেপ নিয়েছে সকল নেটওয়ার্কিং কোম্পানি এমনটাই মনে করা হচ্ছে। এছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিএসএনএলের তরফ থেকে জানানো হচ্ছে আগামী ২০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে তাদের প্ল্যানের সীমা। এছাড়া তাদের তরফ থেকেও ১০ টাকার টক টাইম দেওয়া হবে।