মুম্বই: বিলিয়োনিয়ার মুকেশ আম্বানির তেল থেকে টেলিকম নিয়ে গঠিত রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ ব্র্যান্ড হিসেবে দ্বিতীয় স্থানে চলে এসেছে। এই সংস্থার ঠিক উপরেই ব্র্যান্ড হিসেবে শীর্ষে রয়েছে অ্যাপল। ফিউচার ব্র্যান্ড ইন্ডেক্স ২০২০ এমনটাই জানাচ্ছে। ফিউচার ব্র্যান্ড তাদের ২০২০ ইন্ডেক্স সম্পর্কে বিবৃতিতে জানিয়েছ, এই বছর সবচেয়ে বেশি উঠে এসে একেবারে দ্বিতীয় স্থানে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ।

ভারতের অন্যতম সবচেয়ে লাভজনক সংস্থা রিলায়েন্স সম্পর্কে বলা হয়েছে, ‘অত্যন্ত মর্যাদাসম্পন্ন ‘ এবং ‘নৈতিক আচরণ সম্পন্ন’র পাশাপাশি সংস্থাটির ‘বৃদ্ধি’ ‘ পণ্য উদ্ভাবনী’ এবং ‘অত্যন্ত মহান গ্রাহক পরিষেবক’ । পাশাপাশি বলা হয়েছে, এই সংস্থাটির প্রতি জনগনের একটা আবেগ জড়িয়ে রয়েছে।

ফিউচার ব্র্যান্ড, যা বিশ্বের ব্র্যান্ড ট্রান্সফর্মেশন কোম্পানি জানিয়েছে, এই রিলায়েন্সের সাফল্যের অংশ হিসেবে ধরতে হয় মুকেশ আম্বানির গুণে এটিকে একটা ভারতীয়দের জন্য ‘ওয়ান স্টপ শপ’ হিসেবে গড়ে তোলা। চেয়ারম্যান তার পেট্রোকেমিক্যালের ব্যবসাকে রূপান্তরিত করছে ডিজিটালে যাতে প্রতিটি গ্রাহকের প্রয়োজন মেটাতে পারে।

বর্তমানে এই সংস্থাটি বেশ কিছু ক্ষেত্রে কাজ করছে যার মধ্যে রয়েছে, বিদ্যুৎ, পেট্রোকেমিক্যাল, বস্ত্র ,প্রাকৃতিক সম্পদ, খুচরো ব্যবসা এবং টেলিকমিউনিকেশন। এখন গুগল এবং ফেসবুক এই সংস্থার শেয়ার কিনেছে। ফলে আগামী দিনের সূচকে এই সংস্থাটি শীর্ষে পৌঁছানোর জন্য লাফ দিতে দেখা যাবে বলে জানিয়েছে। ফিউচার ব্র্যান্ড জানিয়েছে, প্রথম ফিউচার ব্র্যান্ড ইনডেক্স গড়ার ছয় বছরে দুনিয়াটা রীতিমত বদলে গিয়েছে। অগ্রাধিকারে জায়গাটা সরে গিয়েছে এবং বিশ্বের শীর্ষ ১০০ সংস্থা যেভাবে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছে তা ১২ মাস আগেও ভাবা যেত না।

২০২০ সালের ফিউচার ব্র্যান্ড ইনডেক্স তালিকায় শীর্ষে রয়েছে অ্যাপল, দ্বিতীয় স্থানে রিলায়েন্স, তৃতীয় স্থানে স্যামসাং। তারপরে রয়েছে যথাক্রমে এনভিডিয়া,মৌয়াতি, নাইট, মাইক্রোসফট, এএস এম এল, পেপাল এবং নেটফ্লিক্স।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও