স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ২১শে জুলাইয়ের শহিদ দিবসের মঞ্চে আসছিলেন পূর্ব বর্ধমানের তৃণমূল কর্মী রেখা সরকার৷ সাত মাসের অন্ত:সত্ত্বা ছিলেন তিনি৷ এদিন সভামঞ্চে আসার পথেই প্রসব যন্ত্রণা ওঠে তাঁর৷

চলন্ত বাসের মধ্যে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বরানগর এলাকায় ফুটফুটে কন্যা সন্তান প্রসব করলেন পূর্ব বর্ধমানের এই তৃণমূল কর্মী৷ সূত্রের খবর ওই শিশুর নাম রাখা হয়েছে একুশি৷ শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে তৃণমূল কংগ্রেসের মহা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় ধর্মতলায়৷ আর সেই সমাবেশে দলের সুপ্রিমো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা শুনতে আসার পথেই পূর্ব বর্ধমান জেলার নীলপুরের অন্তঃসত্ত্বা মহিলা তৃণমূল কর্মী বাসের মধ্যেই ফুটফুটে একটি কন্যা সন্তান প্রসব করলেন৷

আরও পড়ুন : নেত্রী মমতার ভাষণে হোঁচট, কর্মীদের গুঞ্জনে আশঙ্কার ছাপ

ওই বাসেই ছিলেন রেখা দেবীর স্বামী অধীর সরকারও। রবিবার সকাল ৮ টায় পূর্ব বর্ধমান জেলার বর্ধমান শহর থেকে বাসে করে ওই এলাকার প্রায় ৬০ জন তৃণমূল কর্মী কলকাতায় ধর্মতলার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন। বেলঘরিয়া এলাকায় বাসের মধ্যেই মহিলা তৃণমূল কর্মী ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা রেখা সরকারের প্রসব যন্ত্রনা শুরু হয়।

বিটি রোড ধরে বাস কিছুটা এগোতেই রেখা দেবী ওই বাসের মধ্যেই ফুটফুটে একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। এরপর অন্যান্য তৃণমূল কর্মীরা রেখা সরকার ও ওই বাসেই থাকা তার স্বামী অধীর সরকারকে একটি ট্যাক্সিতে করে সদ্যজাত শিশু সহ বরানগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।

আরও পড়ুন : ১৯-এর লোকসভা নির্বাচন মমতার কাছে History নয় Mystery

সেখানেই অধীর বাবু তার স্ত্রী রেখা দেবী ও তার সদ্যজাত শিশুকে ওই হাসপাতালে ভরতি করেন৷ চিকিৎসকরা জানান, মা ও শিশু দুজনেই সুস্থ আছেন। গোটা ঘটনায় খুশী পূর্ব বর্ধমান জেলার সরকার দম্পতি। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনায় খুশি পূর্ব বর্ধমান জেলার তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরাও।

তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা বলেন, আজকের শুভদিনে যেভাবে সময়ের আগেই সন্তান জন্ম দিয়েছেন রেখা দেবী, তা এক ব্যতিক্রমী ঘটনা। জানা গিয়েছিল সদ্যজাত ওই শিশুর নামকরন করবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই তাঁর কানে এই খবর পৌঁছেছে। পরে শিশুর নাম রাখা হয় একুশি৷ ওই সদ্যজাত শিশুর বাবা অধীর সরকার বলেন, মুখ্যমন্ত্রী শিশুর নামকরন করলে তার থেকে বড় কোন খুশির খবর হয় না। বর্তমানে রেখা দেবী ও তার সদ্যজাত সন্তান বরানগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।