নয়া দিল্লি: ফের কমল পেট্রলের দাম৷ বৃস্পতিবার লিটার প্রতি পেট্রলের দাম কমল ১৮ পয়সা৷ অক্টোবার মাসে’র শেষ সপ্তাহ থেকে টানা দাম কমায় কিছুটা হলেও হাঁপ ছাড়ছেন দেশবাসী৷ তবে ডিজেলে’র দামে কোনও বদল হয়নি৷ ১৮ পয়সা কমে দিল্লিতে এদিন পেট্রলের দাম ৭৯.৩৭ টাকা৷ কলকাতাতেও কমেছে দাম৷ শহরে বৃহস্পতিবার পেট্রলের দাম দাঁড়িয়েছে ৮১.২৫ টাকা৷

প্রতীকী ছবি

দাম কমলেও বাণিজ্যনগরী মুম্বইতে পেট্রলের দাম কমেছে ১৬ পয়সা৷ এদিন মুম্বইতে পেট্রলের দাম ধার্য হয়েছে ৮৪.৮৬ টাকা৷ পেট্রলের পাশাপাশি ডিজেলের দাম না কমায় কিছুটা হলেও চিন্তার ভাঁজ মধ্য ও নিম্নবিত্তদের কপালে৷ কৃষি তেকে কলকাখানা, যানবাহন চলাচলে প্রয়োজন ডিজেলে’র৷ ফের যদি দাম একই থেকে যায় দাম তার প্রভাব পড়তে পারে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষের দামে৷ আপাতত সেই প্রশ্নই ভাবাচ্ছে তাদের৷

আরও পড়ুন: সাতসকালে সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষে উত্তপ্ত কাশ্মীর

এর আগে জ্বালানির নাগাড়ে দাম বৃদ্ধিতে নাভিশ্বাস উঠেছিল দেশবাসীর৷ পেট্রল ডিজেলের দাম প্রায় পৌঁছে গিয়েছিল সেঞ্চুরির দোরগোড়ায়৷ কেন্দ্র ও পেট্রোলিয়াম সংস্থাগুলির যুক্তি ছিল বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম ও ইরানের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার ফলে উর্ধ্বমুখী৷ যার প্রভাব পড়েছে ভারতে৷ তবে রোজই তেলের দাম বাড়ায় মোদী সরকারকে নিশানা করে বিরোধীরা৷

মানুষের ভোগান্তি ও বিরোধীদের লাগাতার বিরোধীতায় পদক্ষেপ করে কেন্দ্র৷ অক্টোবরের শুরুতে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেন প্রতি লিটার পেট্রল ও ডিজেলে থেকে দেড় টাকা করে শুল্ক ছাড় দেওয়া হবে৷ পেট্রোলিয়াম সংস্থাগুলিও ভর্তুকি দেবে এক টাকা করে৷ লিটার প্রতি জ্বালানীর দাম কমে আড়াই টাকা৷ কিন্তু তাতেও সুরাহা হয়নি মধ্যবিত্তের৷ তারপরও টানা দাম বৃদ্ধির ফলে আড়াই টাকার ছাড় নেহাতই ঘোষণা বলে মনে হয়৷

তবে দুর্গা পুজোর পর বেশ কয়েকবার দাম কমায় কিছুটা হলেও হাসি ফুটছে দেশবাসীর৷ দীপাবলি পর্যন্ত জ্বালানীর দাম কমার এই হার বজায় থাকবে বলে আসা তাদের৷