প্রতীকী/ ফাইল ছবি

তিরুবনন্তপুরম: ভারী বর্ষণের প্রমাদ গুনছে কেরালা৷ আগামী কয়েকদিন দক্ষিণী এই রাজ্যে প্রবল বৃষ্টি হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে মৌসম ভবন৷ অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে লাল সতর্কতা জারি করেছে রাজ্য প্রশাসন৷
মৌসুমী বায়ু ও নিম্নচাপের জের৷ যার জেরে আগামী কয়েক ঘন্টার মধ্যে মালাবার উপকূল অশান্ত হয়ে উঠতে পারে৷ ফলে দেশের শেষ প্রান্তের এই রাজ্যের বিস্তীর্ণ অংশে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হবে বলে পূর্বাভাস৷

পড়ুন আরও- সাংসদ পদ ছাড়ার পরই বিজেপিতে যোগ দিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর ছেলে

গত বছরই অতিবৃষ্টির জেরে তছনছ হয়ে পড়েছিল কেরালা৷ বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে জনজীবন৷ সেই স্মৃতি এখনও টাটকা৷ বৃষ্টির দরুন কোট্টায়ম ও আলাপ্পুঝা জেলা জলে ঢুবে যায়। যে কারণে, স্কুলকলেজ-সহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল৷ এবার যাতে সেই পরিস্থিতি না হয় তার জন্য আগাম সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে৷ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় লাল সতর্কতার সঙ্গেই জারি করা হয় হলুদ ও কমলা সতর্কতাও৷

মূলত ছয়টি জেলাকে সতর্কতার আওতায় ফেলেছে কেরালা প্রশাসন৷

চলতি মাসের ১৮, ১৯ ও ২০ তারিখ বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে ইডুক্কি জেলায়৷
একই সময় সতর্ক করা হয়েছে মল্লপপুরানকেও৷
ওয়ানাড় ও কুন্নুর জেলাতেও ১৯শে জুলাই আসতে পারে প্রবল বৃষ্টি৷
এছাড়া এনারকুলাম ও থ্রিশূরকে ২০ জুলাই সতর্ক করা হয়েছে৷

এছাড়া রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের তরফে সারা রাজ্যেই ১৮ থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ বিগত ১০০ বছরের মধ্যে ২০১৮ সালেই বৃষ্টির দরুন সবচেয়ে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছিল কেরালা৷ প্রাণহানি হয়েছিল শতাধিক মানুষের৷ জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল৷ সড়ক ও রেল যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েছিল৷ বহু জায়গায় রাস্তা জলের তলায় থাকায় তা ভেঙে পড়ে৷ বিমানবন্দরেও জল প্রবেশ করায় তা বন্ধ হয়ে যায়৷ বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী থেকে বায়ু সেনা, নৌ বাহিনী, সেনা প্রায় মাস ব্যাপী ত্রাণ বিলির কাজ চালায়৷