কেকপ্রেমীরা নানা কিসিমের কেক যে খাবেনই, তা বলাই বাহুল্য৷ কিন্তু হলফ করে বলা যায়, এই কেক বাড়িতে বানাননি৷ পুরো স্বচ্ছ, গোলাকার কেকটির নাম রেনড্রপ কেক৷ একটা জলের ফোঁটার মতই স্বচ্ছ এই কেক৷ ভেবে অবাক হচ্ছেন তো?

জাপানি ডেজার্ট হিসেবে যথেষ্ট জনপ্রিয় রেনড্রপ কেক, যার আরেক নাম মিজু শিনজেন মোচি৷ চেখে দেখবেন নাকি? তাহলে একেবার বাড়িতে বসেই বানিয়ে ফেলুন আর চমকে দিন সবাইকে৷
উপকরণ
২/৩ কাপ স্প্রিং ওয়াটার (বোতলে বিক্রি হয়)
১ চামচ ভ্যানিলা সুগার
অগর গুঁড়ো

প্রণালি
১. মাইক্রোওয়েভের পাত্রে প্রয়োজন মত জল নিন৷ ভ্যানিলা সুগার যোগ করুন৷ তিরিশ সেকেন্ড মাইক্রোওয়েভে গরম করুন এই মিশ্রণ৷ ৩০ সেকেন্ড পরে বের করে নাড়তে থাকুন, যতক্ষণ না ভ্যানিলা সুগার সম্পূর্ণ মিশে যাচ্ছে৷
২. ভ্যানিলা সুগার মিশ্রণ তৈরি করার সময়েই অগর গুঁড়ো খুব সামান্য পরিমাণে নিয়ে মিশ্রণে দিন৷ ফের মিশ্রণটিকে ৩০ সেকেন্ডের জন্য মাইক্রোওয়েভে রাখুন৷ পরে বের করে মিনিট খানেক নাড়তে থাকুন৷

৩. এরপরেও যদি অগর গুঁড়ো না মিশে যায়, ফের মাইক্রোওভেনে রাখুন ও বের করে ভালো করে মেশান৷ যতক্ষণ না এই মিশ্রণ জলে পুরোপুরি মিশে যাচ্ছে, ততক্ষণ নাড়াতে থাকুন মিশ্রণটি৷
৪. মিশ্রণ প্রস্তুত হয়ে গেলে, সেটিকে একটি সুন্দর পাত্রে ঢালুন৷ খুব সতর্কভাবে সেটিকে ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা হতে দিন সারারাত৷
৫. পরের দিন ধীরে ধীরে বের করে আনুন৷ তৈরি হয়ে যাবে আপনার পছন্দসই রেনড্রপ কেক৷ তবে এই কেক কিন্তু খেতে হবে চটজলদি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।