বাঙালি মানেই ভোজনরসিক। এই বিষয়ে সংশয়ের অবকাশ নেই। কমবেশি সকলেই আমরা খেতে ভালোবাসি। ভিন্ন স্বাদের খাবার চেখে দেখার ইচ্ছাও বাঙালিদের মধ্যে প্রবল ভাবে লক্ষণীয়। আমাদের বাড়িতে নানা সময় বিভিন্ন কারণে আত্মীয় স্বজনদের উপস্থিতি লেগেই থাকে। অতিথি সেবায় চা এর পাশাপাশি জায়গা করে নেয় দোকান থেকে কিনে আনা স্ন্যাক্স। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই সেসবের মান ও স্বাদ নিয়ে আমাদের মনে দ্বিধার একটা জায়গা রয়েই যায়। এখন থেকে আর আপনাকে বাইরে থেকে তেলেভাজা আনতে হবে না। খুব সহজেই আপনি বাড়িতেই বানিয়ে ফেলতে পারেন ডিমের ডেভিল। ছাত্রজীবনে বিভিন্ন কেবিন, রেস্তোরাঁয় আড্ডার মাঝে কতই না ডিমের ডেভিল আমরা খেয়েছি। সে সব মধুর স্মৃতি। ডিমের ডেভিল খুবই সুস্বাদু স্ন্যাক্স, ছোট থেকে বড় সবাই ভীষণ পছন্দ করেন। আর বানানোর ক্ষেত্রেও খুব একটা ঝক্কি নেই। বানানোর জন্য যা যা প্রয়োজন সব উপকরণই নিত্যপ্রয়োজনীয় রান্না বান্নার কাজে আমাদের বাড়িতে মজুত থাকে। আসুন দেখে নিই বানানোর রেসিপি

উপকরণ: ৩ টি ডিম, মাটন কিমা ২০০ গ্রাম, ধনে গুঁড়ো এক টেবিল চামচ, করে গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, হলুদ ১ টেবিল চামচ, কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, ২ টেবিল চামচ নুন, হাফ টেবিল চামচ চিনি, গরম মসলা ১ টেবিল চামচ, আমচুর গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, টমেটো সস ১০ গ্রাম, ব্রেডক্রাম্বস ৫০ গ্রাম, , পেঁয়াজ কুঁচি ২০০ গ্রাম, লঙ্কা কুঁচি ৩ গ্রাম, আদা রসুন কুঁচি ১০ গ্রাম, কয়েকটি তেজপাতা।

প্রণালি: ৩ টি ডিম দিয়ে ৬ টি ডেভিল বানানো যায়। প্রথমে ডিম সেদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে অর্ধেক করে কেটে নিন। এবার মাটন কিমাতে সামান্য জল দিয়ে আঠালো করে মেখে একটি পেস্ট বানিয়ে নিন। এবার কড়াইতে সর্ষের তেল গরম করে তেজপাতা ফোরণ দিন। এবার তাতে পেঁয়াজ কুঁচি দিয়ে বাদামি হওয়া অবধি ভালো করে ভেজে নিন। একে একে আদা রসুন কুঁচি, সমস্ত গুঁড়ো মশলা ও সামান্য গরম জল দিয়ে ভালো করে মশলা টা কষিয়ে নিন। মশলা থেকে তেল ছেড়ে দিলে মেখে রাখা মাংসের কিমা টা দিয়ে দিন দিয়ে ভালো করে কষিয়ে রান্না করুন। এবার গরম মসলা গুঁড়ো, আমচুড়, ও টমেটো সস দিয়ে আরও কিছুক্ষণ রান্না করুন যতক্ষণ না মসলা টা শুকিয়ে আসছে। এবার গ্যাস বন্ধ করে মিশ্রণ থেকে তেজপাতা গুলো তুলে নিন। হাত দিয়ে ভালো করে মাখুন। এবার ছোটো ছোটো করে ৬ টি লেচি বানিয়ে নিন। হাফ করে রাখা ডিম গুলোর একটুকরো নিয়ে বানিয়ে রাখা মিশ্রণের একটি লেচি দিয়ে কোটিং দিন। এবার তিনটি আলাদা পাত্রে যথাক্রমে ময়দা, দুটি ফেটিয়ে নেওয়া ডিম ও ব্রেড ক্রাম্বস নিয়ে নিন। মসলার কোটিং দেওয়া ডিম টিকে প্রথমে ময়দা, তারপর ফেটানো ডিম, তারপর ব্রেড ক্রাম্বস, তারপর আবার ফেটানো ডিম, আবার ব্রেড ক্রাম্বস এর মধ্যে ডুবিয়ে নিন। এবার কড়াইতে সাদা তেল নিয়ে তাতে ডিপ ফ্রাই করুন। তৈরি ডিমের ডেভিল। কাসুন্দির সাথে খেতে দারুন লাগবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.