গেটাফে: সেভিয়া, ভ্যানেন্সিয়ার মতো প্রথমসারির দলগুলিকে টপকে হঠাৎই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের বৃত্তে ঢুকে পড়ার উপক্রম গেটাফের৷ গত মরশুমে প্রিমিয়র ডিভিশনে উঠে আসা দলটি লিগ শেষ করেছিল আট নম্বরে থেকে৷ এবার ৩৪ রাউন্ডের শেষে তারা লিগ টেবিলের চার নম্বরে৷ শেষ চারটি ম্যাচে হঠকারীতা না করলে বার্সেলোনা, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও রিয়ালের সঙ্গে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের টিকিট নিশ্চিত করতে পারে গেটাফে৷ অন্তত পরের মরশুমে তাদের ইউরোপা লিগ খেলার সম্ভাবনা রয়েছে প্রবল৷

ঘরের মাঠে চোখ ধাঁধানো ফুটবল উপহার দিতে না পারেনি গেটাফে৷ তবে রিয়াল মাদ্রিদের মতো শক্তিশালী দলকে আটকে দেওয়ার মতো প্রতিরোধ গড়ে তুলতে চেষ্টায় ত্রুটি রাখেনি তারা৷ জিদানের যাবতীয় পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়ে শেষমেশ ম্যাচ গোলশূন্য (০-০) ড্র করতে সক্ষম হয় হোসে জিমেনেজের প্রশিক্ষণাধীন গেটাফে৷

আয়াক্সের কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ছিটকে যাওয়ার পর রিয়াল মাদ্রিদ গত আট ম্যাচের মাত্র একটিতে হারলেও সময়টা তেমন ভালো যাচ্ছে না তাদের৷ শেষ তিনটি অ্যাওয়ে ম্যাচে পয়েন্ট খোয়াতে হল জিদানদের৷ ভ্যালেন্সিয়ার কাছে হার ও লেগানেসের বিরুদ্ধে ড্র করার পর এবার গেটাফে আটকে দেয় মাদ্রিদকে৷

৩৪ ম্যাচের পর রিয়ালের সংগ্রহ ৬৫ পয়েন্ট৷ তারা লিগ টেবিলের তৃতীয় স্থানে রয়েছে৷ মাদ্রিদের বিরুদ্ধে ড্র করার সুবাদে গেটাফে উঠে এসেছে চার নম্বরে৷ ৩৪ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৫৫ পয়েন্ট৷ সেভিয়ার (৫৫) নাগাল এড়িয়ে চলতে পারলে লা লিগা থেকে চতুর্থ দল হিসাবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের টিকিট অর্জন করবে গেটাফেই৷

অন্যদিকে লিগ জয় কেবল বার্সেলোনার সময়ের অপেক্ষা৷ রবিবার লেভান্তের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে খেলতে নামবেন মেসিরা৷ সেই ম্যাচ জিতলেই লা লিগার খেতাব ধরে রাখবে কাতালান দলটি৷ তবে শনিবারই তাদের লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিশ্চিত হয়ে যেতে পারে, যদি ঘরের মাঠে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ হেরে বসে রিয়াল ভায়াদলিদের কাছে৷ বার্সেলোনা ৩৪ ম্যাচে ৮০ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শীর্ষে রয়েছে৷ দ্বিতীয় স্থানে থাকা অ্যাটলেটিকোর সংগ্রহ ৭১ পয়েন্ট৷