নয়াদিল্লিঃ  ব্যাংক গ্রাহকদের জন্যে সুখবর। অনলাইনে টাকা ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে পুরোপুরি চার্জ তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। আজ বৃহস্পতিবার এই সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের কথা রিজার্ভ ব্যাংকের তরফে জানানো হয়েছে।

মূলত দুটি পদ্ধতিতে টাকা ট্রান্সফার করা যায়। একটি হল আরটিজিএসের মাধ্যমে অন্যটি হল এনইএফটির মাধ্যমে। আরটিজিসির মাধ্যমে অন্যের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে হলে সঙ্গে সঙ্গে তা ট্রান্সফার হয়ে যায়। কিন্তু এনইএফটির ক্ষেত্রে বেশ কিছুটা সময় লেগে যায়। অনেক ক্ষেত্রে একদিনও লেগে যায়। আর সেই কারণে এখন আরটিজিএসের মাধ্যমে টাকা ট্রান্সফার বেশি হচ্ছে। যদিও দুটি পদ্ধতিতেই টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট টাকা লাগে। তবে আরটিজিএসের ক্ষেত্রে লেনদেন চার্জ একটু বেশি। কিন্তু দুটি ক্ষেত্রেই সঙ্গে সঙ্গেই গ্রাহকের সংশ্লিষ্ট ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হয়। জিএসটি সমেত সেই টাকা কেটে নেওয়া হয়।

কিন্তু এক্ষেত্রে গ্রাহকদের স্বস্তি দিচ্ছে রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। আরবিআইয়ের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, এবার থেকে দুটি ক্ষেত্রেই আরও কোনও চার্জ দিতে হচ্ছে না গ্রাহককে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে দেশের সমস্ত ব্যাংকের কাছে এই নির্দেশিকা পৌঁছে যাবে বলে জানানো হয়েছে। যেখানে নয়া এই আরবিআইয়ের গাইড লাইনগুলি নির্দিষ্ট করে বলা থাকবে। আর তা দেখে ব্যাংকগুলিও সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করবে। পাশাপাশি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ব্যাংক তাঁদের গ্রাহকদের এই বিষয়ে তথ্য দেবে।

অন্যদিকে, এটিএম থেকে পাঁচবারের বেশি টাকা তুলতে গেলে একটা নির্দিষ্ট চার্জ কেটে নেয় ব্যাংক। আগামিদিনে সেই চার্জ এক ধাক্কায় অনেকটাই কমতে পারে বলে এদিন আশা দেখিয়েছে আরবিআই। এই বিষয়ে আরবিআইয়ের তরফে জানানো হয়েছে, সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নিয়ে একটি বিশেষ কমিটি গঠন করার কথা জানিয়েছে আরবিআই। কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে ইন্ডিয়ান ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশনের সিইও। আগামী দু’মাসের মধ্যে ওই কমিটি রিপোর্ট দেবে। আর সেখানে এটিএমের চার্জ কমানো নিয়ে গুরুত্বপুর্ন সিদ্ধান্ত দেওয়া হতে পারে আরবিআইকে। আর তা পর্যালোচনা করেই এটিএমে চার্জ কমার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। একাংশের মতে, গ্রাহকদের সুবিধার কথা ভেবে আরটিজিএস-এনইএফটির মতোই পুরোপুরি তুলে দেওয়া হতে পারে এটিএমের চার্জও।

অন্যদিকে আজ বৃহস্পতিবার নয়া ঋণনীতি ঘোষণা করেছে রিজার্ভ ব্যাংক৷ যেখানে সুদের হার ০.২৫ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই নিয়ে টানা তিনবার কমল রেপো রেট৷ বৃহস্পতিবারের ঘোষণার পর রেপো রেট দাঁড়াল ৫.৭৫ শতাংশে৷ যা নয় বছরের সর্বনিম্ন বলে জানাচ্ছেন অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷ এদিন সকালে এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে আরবিআইয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, রেপো রেট ২৫ বেসিস পয়েন্ট কমানো হল৷ আগে রেপো রেটের হার ছিল ৬ শতাংশ৷ তা কমে হল ৫.৭৫ শতাংশ৷ রেপো রেট কমে যাওয়ার অর্থ সুদের হার কমে যাওয়া৷ এতে সুবিধা ও অসুবিধা দুই আছে৷

আরবিআইয়ের এই সিদ্ধান্তের পর ব্যাংকগুলি সুদের হার কমিয়ে দেবে৷ এর ফলে যারা বাড়ি, গাড়ি বা অন্যান্য কারণে ঋণ নিয়েছেন তারা খুশি৷ কারণ তাদের ঋণের পরিমাণ কমবে৷ উল্টোদিকে স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমে যাওয়ায় ভোগান্তি বাড়বে আমানতকারীদের৷