মুম্বই: রিজার্ভ ব্যাংক শুক্রবার পাঞ্জাব মহারাষ্ট্র কো-অপারেটিভ ব্যাংকের (পিএমসি ব্যাংক) কার্যকলাপের উপর নিষেধাজ্ঞা আরও ৬মাস বাড়িয়ে দিল। তবে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ওই ব্যাংকের আমানতকারীদের টাকা তোলার ক্ষেত্রে উর্ধ্বসীমা ৫০,০০০ থেকে বাড়িয়ে এক লক্ষ করে দেয়।‌গত মার্চ মাসে রিজার্ভ ব্যাংক পিএমসি ব্যাংকের উপর আরবিআই নিয়ন্ত্রণ করতে কার্যকলাপের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ২০২০ সালের ২২ জুন পর্যন্ত।

এদিকে আমানতকারীদের টাকা তোলার ক্ষেত্রে শিথিলতা দেওয়ার ফলে পিএমসি ব্যাংকের ৮৪ শতাংশ আমানতকারী সক্ষম হবে তাদের ওই ব্যাংকে জমা রাখা সমস্ত টাকা তুলে নিতে। সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের নগদের অবস্থা পর্যালোচনা করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে ব্যাংক ওইসব আমানতকারীর টাকা ফেরত দিতে পারবে এবং এই করোনাভাইরাস তথা লক ডাউনের সময় টাকা তুলতে পেরে আমানতকারীদের আর্থিক অবস্থা সুরাহা হবে।

এর আগে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে কেন্দ্রীয় ব্যাংক অনুমতি দেয় পিএমসি ব্যাংকের আমানতকারীরা ‌ তাদের অ্যাকাউন্টে জমা থাকা ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত তুলতে পারবেন। বিবৃতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছে, তারা খুব কাছ থেকে পরিস্থিতি নজর রাখছে এবং এর স্বার্থের সঙ্গে জড়িত লোকেদের সঙ্গে আলোচনা করে এগোচ্ছেন। তবে লকডাউন চলায় গোটা প্রক্রিয়ার কাজে প্রভাব ফেলছে।

প্রসঙ্গত,এই পাঞ্জাব অ্যান্ড মহারাষ্ট্র কো-অপারেটিভ ব্যাংকের ৪৩৫৫ কোটি টাকার কেলেঙ্কারির কথা জানাজানির পর টাকা তোলার ক্ষেত্রে সীমা টানা হয় এবং ১০০০টাকার বেশি তোলায় নিষেধাঙ্গা জারি হয়৷ পরে অবশ্য টাকা তোলার সীমা বাড়ানো হয়েছে।এই ব্যাংকটির সংকটের কারণ হল প্রচুর ঋণ দেওয়া হয়েছিল হাউসিং ডেভলপমেন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিডেটের (এইচডিআইএল) যা নিয়ন্ত্রকের চোখ এড়িয়ে অনুৎপাদক সম্পদে পরিণত হয়৷ এইচডিআইএল-র প্রোমোটার সহ পাঁচজনকে এই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও