নটিংহ্যাম: বল হাতে দুই ইনিংসেই দুরন্ত পারফরম্যান্স রবিচন্দ্রন অশ্বিনের৷ ব্যাট হাতেও অনবদ্য প্রতিরোধ গড়েন৷ তবু ম্যাচ হারতে হয় তাঁর দলকে৷

কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে অশ্বিনের দল নটিংহ্যামশায়ারের ম্যাচ ছিল সারের বিরুদ্ধে৷ ম্যাচে বল হাতে দুই ইনিংসেই পাঁচ উইকেটের মাইলস্টোন টপকে যান অশ্বিন৷ ব্যাট হাতেও উভয় ইনিংসে দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন৷ কার্যত একা লড়াই চালিয়েও নটিংহ্যামকে জয় এনে দিতে পারেননি অশ্বিন৷ বাকিরা নূন্যতম এবদান রাখতে না পারায় সারের কাছে অশ্বিনদের হারতে হয় ১৬৭ রানে৷

সারে প্রথমে ব্যাট করে ৮৯.২ ওভারে ২৪০ রানে অলআউট হয়ে যায়৷ ডিন এলগার দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৯ রান করেন৷ অশ্বিন ৩৩.২ ওভার বল করে ৬৯ রানের বিনিময়ে ৬টি উইকেট নেন৷ পালটা ব্যাট করতে নেমে নটিংহ্যামশয়ার ৫২.৫ ওভারে মাত্র ১১৬ রানে আলআউট হয়ে যায়৷ অশ্বিন দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৭ রান করেন৷

প্রথম ইনিংসের নিরিখে ১২৪ রানে এগিয়ে থেকে পুনরায় ব্যাট করতে নামা সারে ৭৯.২ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিমেয় ২২৪ রান তুলে তাদের দ্বিতীয় ইনিংস ডিক্লেয়ার করে৷ জেমি স্মিথ ৫৭ ও জর্ডন ক্লার্ক ৫৪ রান করেন৷ অশ্বিন দ্বিতীয় ইনিংসে ৩১ ওভার বল করে ৭৫ রানের বিনময়ে ৬টি উইকেট নেন৷ অর্থাৎ দুই ইনিংস মিলিয়ে অশ্বিন ম্যাচে মোট ১২টি উইকেট দখল করেন৷

জয়ের জন্য ৩৪৯ রানের লক্ষ্যমাত্রা সামনে নিয়ে শেষ ইনিংসে ব্যাট করতে নামা নটিংহ্যামশায়ার ৪৮.৩ ওভারে ১৮১ রানে অলআউট হয়ে যায়৷ অশ্বিন ব্যক্তিগত ৬৬ রানে অপরাজিত থাকেন৷ ১৬৭ রানে ম্যাচ হারে নটিংহ্যামশায়ার৷ অশ্বিনের এমন দুরন্ত পারফরম্যান্স ঢাকা পড়ে যায় অমর ভার্ডির ছায়ায়৷ সারের হয়ে প্রথম ইনিংসে ৮টি ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৬টি উইকেট নেন ২০ বছর বয়সি ডান হাতি অফস্পিনার৷

চলতি কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপের ৩টি ম্যাচে মাঠে নেমে অশ্বিন ইতিমধ্যেই ২৩টি উইকেট সংগ্রহ করেছেন৷ তিনবার ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্বও দেখান ভারতীয় স্পিনার৷ এসেক্সের বিরুদ্ধে একবার বল করতে হয় নচিংহ্যামকে৷ অশ্বিন ১৬২ রানে ৩টি উইকেট নেন সেই ম্যাচে৷ সামারসেটের বিরুদ্ধে দুই ইনিংসে যথাক্রমে ৯৩ রানে ৩টি ও ৫৯ রানে ৫টি উইকেট নেন রবিচন্দ্রন৷ ব্যাট হাতে ৬টি ইনিংসে যথাক্রমে ৫, ৩৫, ২৩, ৪১, ২৭ ও অপরাজিত ৬৬ রান করেন তিনি৷