নয়াদিল্লি: বিগত দু’টি মরশুমে তাঁর অধিনায়কত্বে বিশেষ কোনও সাফল্য পায়নি দল। উলটে দলে রবিচন্দ্রন  পারফরফরম্যান্স নিয়ে খুব একটা খুশি ছিল না কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ফ্র্যাঞ্চাইজি। তাই নতুন মরশুমে বাণিজ্যিক চুক্তিতে তাঁকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল দিনকয়েক আগেই।

এমতাবস্থায় এই ফিঙ্গার স্পিনারকে নিজেদের দলে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন দিল্লি ক্যাপিটালস মেন্টর সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। নয়াদিল্লিতে এক অনুষ্ঠানে এসে দিল্লি মেন্টর জানিয়েছিলেন অশ্বিনকে দলে পেলে খুশি হবেন তিনি। সৌরভের ইচ্ছে অনুযায়ী শেষমেষ ঠিকানা বদলে আগামী মরশুমের জন্য দিল্লি ক্যাপিটালসেই চূড়ান্ত হয়ে গেলেন রবি অশ্বিন। ২০১৭ সপ্তম ও ২০১৮ ষষ্ঠস্থানে শেষ করার পর অধিনায়ককে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তই গ্রহণ করল প্রীতি জিন্টার কিংস ইলেভেন।

অশ্বিনের দলবদলের বিষয়টি এখন শুধু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অনুমোদনের অপেক্ষায়। এরপর খুব শীঘ্রই সরকারীভাবে তা ঘোষণা করা হবে। প্রীতি জিন্টার দলে পরবর্তী অধিনায়ক কে হবেন, তা চূড়ান্ত হবে প্রধান কোচ নির্বাচনের পরেই। ২০১৪ রানার্স হওয়ার পর গত পাঁচ মরশুমে প্লে-অফে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি কিংস ইলেভেন। এমনিতেই আইপিএলের ১১টি সংস্করণে এখনও ট্রফিহীন পঞ্জাবের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলটি।

সম্প্রতি ক্যারিবিয়ান সফরে টেস্ট স্কোয়াডে থাকলেও প্রথম একাদশে অটোমেটিক চয়েস হিসেবে নিজের গ্রহণযোগ্যতা হারিয়েছেন অশ্বিন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দু’টি টেস্টের একটিতেও দলে সুযোগ পাননি এই ৩২ বছরের দক্ষিনী স্পিনার। কিংস ইলেভেনের হয়ে ২৮টি ম্যাচে ২৫ উইকেটের পাশাপাশি ব্যাট হাতে ১৪৬ রান রয়েছে অশ্বিনের ঝুলিতে।

এদিকে ২০১৯ কিং ইলেভেনের দায়িত্বে থাকা মাইক হেসন দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন। ভারতীয় দলের কোচের পদে আবেদন করার কারণে পঞ্জাবের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলটির কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন এই কিউয়ি কোচ। শেষমেষ ভারতীয় দলের কোচ হিসেবে নির্বাচিত না পারলেও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের ডিরেক্টর অফ ক্রিকেট অপারেশন হিসেবে নয়া দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন তিনি।