নয়াদিল্লি: আলোচনা চলছিল বেশ কিছুদিন ধরেই৷ রবিচন্দ্রন অশ্বিন যে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ছেড়ে দিল্লি ক্যাপিটালসে যাচ্ছেন, তা নিশ্চিত হয়ে যায় কয়েকদিন আগেই৷ বিসিসিআই ও দুই ফ্র্যাঞ্চাইজি সূত্রে তেমনই ইঙ্গিত মিলেছিল৷ পরে পঞ্জাব ফ্র্যাঞ্চাইজির তরফে খবরের যথার্থতা স্বীকার করে নেওয়া হয়৷ শুধু সরকারিভাবে ঘোষণা করা যাচ্ছিল না অশ্বিনের পরিবর্তে পঞ্জাব দিল্লি থেকে কাকে দলে নেবে তা নির্ধারিত না হওয়ায়৷

সরকারিভাবে ঘোষণা এখনও হয়নি৷ ১৪ নভেম্বর আইপিএল নিলামের আগে শেষ ট্রেড উইন্ডো বন্ধ হওয়ার পরে সম্ভবত বোর্ডের তরফে সরকারিভাবে জানিয়ে দেওয়া হবে অশ্বিনের দলবদলের কথা৷ তবে তার আগে পঞ্জাব ফ্র্যাঞ্চাইজির তরফে অন্যতম মালিক নেস ওয়াদিয়া জানিয়ে দেন যে, দিল্লির সঙ্গে অশ্বিনকে নিয়ে তাদের আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে৷ কোন শর্তে অশ্বিনকে দিল্লি ফ্র্যাঞ্চাইজিকে দেওয়া হয়েছে, তাও জানিয়ে দেন পঞ্জাবের কো-ওনার৷

আরও পড়ুন: অনন্য ‘সেঞ্চুরি’ রোহিত শর্মার

অশ্বিনের পরিবর্তে দিল্লির কাছ থেকে পঞ্জাব পাচ্ছে জগদীশা সূচিথকে৷ সঙ্গে দেড় কোটি টাকা৷ সূচিথ ছাড়াও অশ্বিনের বদলে পঞ্জাব চেয়েছিল কিউয়ি পেসার ট্রেন্ট বোল্টকে৷ রাজি হয়নি দিল্লি৷

ওয়াদিয়া বলেন, ‘এই বিনিময়ে সবাই খুশি৷ আমরা খুশি৷ অশ্বিন খুশি৷ দিল্লিও খুশি৷ আমরা তিনটি ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছিলাম৷ অবশেষে একটা যথাযথ চুক্তি সম্পন্ন হল৷ অশ্বিনের জন্য আমাদের শুভেচ্ছা রইল৷’

আরও পড়ুন: ক্যাপ্টেনের শততম ম্যাচে দুরন্ত জয় টিম ইন্ডিয়ার

গত মরশুমের পরেই অশ্বিনকে দলে রাখা নিয়ে সংশয়ে ছিল পঞ্জাব ফ্র্যাঞ্চাইজি৷ তাঁকে ছেড়ে দেওয়া নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে গত কয়েক মাসে৷ অনিল কুম্বলে পঞ্জাবের দায়িত্ব নেওয়ার পর সেই অলোচনা নতুন মাত্রা পায়৷ প্রাথমিকভাবে কুম্বলে অশ্বিনের প্রশংসা করলেও শেষমেশ ফ্র্যাঞ্চাইজির সিদ্ধান্তেই সম্মতি জানান জাম্বো৷ অশ্বিনের নেতৃত্বে পঞ্জাব দু’টি মরশুমের শুরুটা দারুণ করলেও পরে খেই হারায়৷ ২০১৮ সালে পঞ্জাব সপ্তম ও ২০১৯ সালে ষষ্ঠ স্থানে থেকে আইপিএল শেষ করে৷ দিল্লির কাছে থেকে অশ্বিন পাবে তাঁর নিলাম মূল্যের ৭.৬ কোটি টাকা৷