নটিংহ্যাম: ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগে প্রস্তুতি হিসাবে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেকে একপ্রস্ত ঝালিয়ে নিয়েছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন৷ মাঝে তামিলনাড়ু প্রিমিয়র লিগের অংশ নেওয়ার পর ক্যারিবিয়ান সফরে উড়ে গিয়েছিলেন৷ যদিও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দু’ম্যাচের টেস্ট সিরিজে মাঠে নামার সুযোগ হয়নি তাঁর৷ এবার ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে খেলতে নামার আগে সেই কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপেই নিজেকে আরও একবার যাচাই করে নিলেন অশ্বিন৷

আরও পড়ুন: কখনও ভাবিনি সচিনের কাছাকাছি কেউ পৌঁছতে পারবে, বিরাটের প্রশংসায় জানালেন কপিল

নটিংহ্যামশায়ারের হয়ে কেন্টের বিরুদ্ধে প্রথম ইনিংসে ১২১ রানে ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন অশ্বিন৷ দ্বিতীয় ইনিংসে ৮৯ রানের বিনিময়ে ৫টি উইকেট দখল করেন তিনি৷ ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ৭ রানে আউট হওয়া অশ্বিন দ্বিতীয় ইনিংসে খেলেন দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৫ রানের ইনিংস৷ অর্থাৎ বল হাতে দুই ইনিংসেই দলের হয়ে সব থেকে বেশি উইকেট নেন অশ্বিন৷ ব্যাট হাতে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলেন দলের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংসে৷ তা সত্ত্বেও নটিংহ্যামশায়ার ম্যাচ হারে ২২৭ রানের বড় ব্যবধানে৷

আরও পড়ুন: রোহিতের দলে বাংলার অভিমন্যু-ইশান

চলতি কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে এই নিয়ে মোট চারটি ম্যাচে মাঠে নামলেন অশ্বিন৷ ৭টি ইনিংসে বল করতে নেমে তুলে নেন ৩২টি উইকেট৷ চার বার ইনিংসে পাঁচ বা তারও বেশি উইকেট নিয়েছেন ভারতীয় অফ-স্পিনার৷ ম্যাচে দশ উইকেটের গন্ডি টপকেছেন এক বার৷ ব্যাট হাকে দু’টি হাফসেঞ্চুরিও করেন রবিচন্দ্রন৷

আরও পড়ুন: BREAKING: বাদ পড়লেন রাহুল, টেস্ট দলে নতুন মুখ শুভমন

এসেক্সের বিরুদ্ধে নিজের প্রথম ম্যাচের একমাত্র ইনিংসে ৬০ রানের বিনিময়ে ৩ উইকেট দখল করেন অশ্বিন৷ ব্যাট হাতে দুই ইনিংসে যথাক্রমে ৫ ও ৩৫ রান সংগ্রহ করেন৷ সামারসেটের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৯৩ রানে ৩ উইকেট নেন৷ দ্বিতীয় ইনিংসে দখল করেন ৫৯ রানের বিনিময়ে ৫টি উইকেট৷ ব্যাট করতে নেমে দুই ইনিংসে যথাক্রমে ২৩ ও ৪১ রানের সংক্ষিপ্ত ইনিংস খেলেন তিনি৷

আরও পড়ুন: প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে দাপুটে জয় ভারতের

দেশে ফেরার আগে সারের বিরুদ্ধে দুই ইনিংসে ৬টি করে উইকেট নেন ভারতীয় তারকা৷ প্রথম ইনিংসে ৬৯ রানে ৬ উইকেট এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৭৫ রানে ৬ উইকেট দখল করেন৷ ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ২৭ রান করে আউট হন৷ দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৬৬ রানে৷