ইন্দোর: তিনি যাই করুক না কেন, সোশাল মিডিয়ায় তাঁকে নিয়ে হাসিঠাট্টা লেগেই থাকে৷ টিম ইন্ডিয়ার প্র্যাকটিসে নেটে হাত ঘুরিয়ে এবার নেটিজেনদের বিদ্রুপের শিকার হলেন বিরাট-রোহিতদের ‘হেডস্যর’ রবি শাস্ত্রী৷

মধ্যপ্রদেশের হোলকর স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলছে ভারত। কিন্তু ম্যাচের আগের দিন প্র্যাকটিসে বিরাটদের নেটে হাত ঘোরাতে দেখা যায় টিম ইন্ডিার প্রধান কোচ শাস্ত্রী৷ সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন ভারতীয় দলের প্রাক্তন বাঁ-হাতি স্পিনার৷ পোস্টে শাস্ত্রী লেখেন, ‘ওল্ড হ্যাবিটস ডাই হার্ড।’ তাঁর এই পোস্টে নানারকম হাস্যকর মন্তব্য করে টিম ইন্ডিয়ার কোচকে বিদ্রুপ করে নেটিজেনরা।

‘ওল্ড হ্যাবিটস ডাই হার্ড।’ বাংলার তর্জমা করলে হয়, মরলেও পুরনো অভ্যাস যায় না। ক্রিকেট কেরিয়ারে ভারতীয় দলে অল-রাউন্ডারের ভূমিকা পালন করতেন শাস্ত্রী। ডান হাতে ব্যাট ও বাঁ-হাতে বল করার স্টাইল ছিল তাঁর ‘ট্রেড মার্ক’। ব্যাট হাতে দেশের হয়ে বেশ কয়েক হাজার রান করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাঁর উইকেটের সংখ্যাও কম নয় শাস্ত্রীর৷

টেস্টে ১৫১টি উইকেট রয়েছে শাস্ত্রীর। ওয়ান ডে ক্রিকেটের সংখ্যা ১২৯টি উইকেট। এছাড়া প্রথমশ্রেণির ক্রিকেটে শাস্ত্রীর উইকেট সংখ্যা ৫০৯। কিন্তু ৪৭ বছর বয়সে নেটে শাস্ত্রীর বল করা নিয়ে নেট-দুনিয়ায় চর্চা শুরু হয়ে যায়। কেউ টেনে এনেছেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সদ্য দায়িত্ব নেওয়ার কথা। কেউ আবার শাস্ত্রীর অন্য অভ্যাস নিয়ে খোঁচা দিয়েছেন।

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সদ্যসমাপ্ত টি-২০ সিরিজে টিম ইন্ডিয়ার ড্রেসিংরুমে শাস্ত্রীর সুপ খাওয়ার ছবি পোস্ট করে করে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভকে কিছু একটা বলার চেষ্টা করেছিলেন। কেউ আবার সেই ছবি নিয়ে মিম তৈরি করেন।

আগেও সোশাল মিডিয়ায় ট্রোলড হয়েছেন শাস্ত্রী। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে খেলা চলাকালীন তাঁর ঘুমিয়ে পড়ার ছবি ভাইরাল হয়েছিল। গত কয়েক বছর ধরেই সৌরভের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়েও সোশাল মিডিয়ায় কম চর্চা হয়নি।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।