ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: রাজনীতির ময়দানে একেবারেই অযোগ্য এবং অজ্ঞ ব্যক্তি হলেন রাহুল গান্ধী। মোদী বিরোধী মহাজোটকে কটাক্ষ করে এই ভাষাতেই ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতিকে আক্রমণ করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ।

আরও পড়ুন- মেট্রো চ্যানেলে ধর্নায় বসতেই মান্নানদের গ্রেফতার করল পুলিশ

মহাজোটকে আক্রমণ করতে গিয়ে কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পর্কের প্রসঙ্গে টেনে এনেছেন মোদীর মন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন যে রাহুল গান্ধী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলেছেন। আর অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস নেতারা তৃণমূল নেত্রীর নিন্দা করছে।

ফাইল ছবি

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের আগে অবিজেপি মহাজোটের আহ্বান জানিয়েছে দেশের একাধিক রাজনৈতিক দল। সকলের লক্ষ্যক্স মোদীকে পরাস্ত করা। সেই লক্ষ্যে কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্দে গত ১৯ জানুয়ারি মহাসমাবেশের আয়োজন করে তৃণমূল। ওই সমাবেশের মঞ্চে ২৩টি রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতা হাজির ছিলেন বলে দাবি করেছে ঘাস ফুল শিবির।

সেই সমাবেশকে হাতিয়ার করেই লোকসভার লড়াইয়ে নামতে চাইছে বিরোধী শিবির। কিন্তু এই যুযুধান নেতাদের জোটকে কটাক্ষ করতে শুরু করেছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই এই নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন, “এক সময় কেউ কারো মুখ দেখতো না এখন মোদীকে হারাতে জোট করেছে।” এই ধরনের জোটের ভবিষ্যৎ নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মোদী।

এবার সেই একই সুর শোনা গেল মোদীর মন্ত্রীর গলায়। কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ বলেছেন, “রাহুল গান্ধী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলছেন। কিন্তু বাংলার কংগ্রেস নেতারা মমতার বিরধিতা করছেন। এই বিষয়টিই জোটের ছবি পরিষ্কার দেখিয়ে দিচ্ছে।”

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে, এদিনই কলকাতার মেট্রো চ্যানেলে ধর্না দিতে গিয়ে বাধার মুখে পরে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব। আবদুল মান্নান সহ একাধিক নেতাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। এই ধর্নার বিষয়ে আগাম কোনও অনুমতি নেওয়া ছিল কংগ্রেস নেতাদের। এক সপ্তাহ আগে ওই একই জায়গায় ধর্নায় বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কংগ্রেসের জাতীয় নেতারা রাহুল গান্ধীর এই প্রদেশ নেতৃত্বের বিরোধী অবস্থানকে ‘বাধ্যবাধকতা’ বলে দাবি করে। রাজনীতিতে তাঝলে দৈত সত্ত্বা নিয়ে চলছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল? এই বিষয়ে রবি শঙ্কর প্রসাদ বলেছেন, “দৈত সত্ত্বা অনেক দূরের কথা। আরহুল গান্ধীর কোনও সত্ত্বাই নেই।”

আরও পড়ুন- জোটের জটেই মমতাকে সমর্থন রাহুলের