ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: করোনাতঙ্কে ভুগছে গোটা দেশ। মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। মারণ ব্যাধির প্রকোপে পর‍্যদস্তু এই রাজ্যও। ফলে করোনা মোকাবিলায় বদ্ধপরিকর কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার। এই অবস্থায় ফের মুখ্যমন্ত্রীকে একহাত নিলেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং।

করোনা মোকাবিলায় গরীব মানুষদের জন্য ত্রান সঙ্গে বলতে গিয়ে এদিন তিনি বলেন, “বাংলায় রেশনিং ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে । বাংলায় মুখ্যমন্ত্রীর কথা কেউ শুনছে না । রেশন লুঠ হচ্ছে । যাদের রেশন কার্ড নেই তাদের বলা হয়েছে কুপন দিয়ে রেশন তুলতে পারবে । কিন্তু রেশন দোকানে জিনিসই নেই তো মানুষ কি পাবে ? রেশন দোকানে যা খাবার এসেছিল তার অর্ধেক তো ওদের দলের ছেলেরাই লুঠ করে নিয়েছে । মানুষকে যে পরিমাণ দেওয়ার কথা ছিল তা মানুষ পাচ্ছেন না । আমরা প্রথম দিন থেকেই রাস্তায় আছি । সাধারন মানুষের পাশে আছি।”

বৃহস্পতিবার উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দলের গুরদহ এলাকায় আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া সাধারন মানুষের বাড়িতে বাড়িতে চাল, ডাল, তেল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য পৌঁছে দিতে এসে একথাই বলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং ।

তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, “বাংলায় নিজামউদ্দিন ফেরতরা সংখ্যায় সব থেকে বেশি যারা লুকিয়ে আছে। এরা একেকজন মানব বোমা। আর বাংলা হল এই সব অপরাধীদের মুক্তাঞ্চল। বাংলাদেশের সব থেকে বড় হত্যাকাণ্ড শেখ মুজিবর রহমানের খুনি এই বাংলায় এত বছর লুকিয়েছিল । এটাই প্রমাণ করে বাংলা কাদের মুক্তাঞ্চল। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে আগেও দেখেছি, এখনও দেখছি উনি যা মুখে বলেন, তার প্রতিফলন কাজে হয় না । এখনও বুঝতে পারছি না করোনায় মৃতদের সংখ্যা কেন কমানো হচ্ছে ? কেউ মারা যাচ্ছে করোনা ভাইরাসের কারণে, বলা হচ্ছে হার্ট ফেল করেছে বা কিডনির সমস্যায় মারা গেছে। কিছু বলার নেই। এরকমই চলবে তৃণমূলের শাসনে ।”

এদিন দুপুরে সাংসদ অর্জুন সিং’য়ের সঙ্গে জগদ্দলের গুরদহ এলাকায় গরীব মানুষের বাড়িতে বাড়িতে ত্রাণ পৌঁছে দেন স্থানীয় বিজেপি নেতা অরুণ ব্রহ্ম সহ অন্যান্য বিজেপি কর্মীরা ।