নয়াদিল্লি: ন্যাশনাল ল’ অ্যাপেলেট ট্রাইব্যুনাল (এনসিএলএটি)-এ দেওয়া সাইরাস মিস্ত্রিকে পুনর্বহালের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে, এবার রতন টাটা তাঁর ব্যক্তিগত ক্ষমতা বলে সুপ্রিম কোর্ট গেলেন ৷ কয়েকদিন আগে সাইরাস মিস্ত্রিকে পুনর্বহালের নির্দেশ দিয়েছিল ন্যাশনাল ল’ অ্যাপেলেট ট্রাইব্যুনাল (এনসিএলএটি), আর সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিল টাটা সন্স।

আদালতে আবেদনে রতন টাটা দাবি করেছেন, মিস্ত্রিকে সরানো হয়েছে যেহেতু তিনি তাঁর সময় মতো ব্যবসায়ের সুযোগ গুলি কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছেন এবং তাঁর আমলে টাটা সন্সের আর্থিক অবস্থা ছিল রীতিমতো অসন্তোষজনক ৷ তাছাড়া আবেদনকারী আরও জানিয়ে ছিলেন, এনসিএলএটি রায়টি একটি ভুল আইনি নজির তৈরি করছে ,যা সরকারি এবং রাষট্রায়ত্ত সংস্থা সহ বেশ কয়েকটি সংস্থার বিরুদ্ধে অপব্যবহার হতে পারে৷

গত ১৮ ডিসেম্বর এনসিএলএটি টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান হিসাবে সাইরাস মিস্ত্রিকে পুনর্বহালের রায় দিয়েছিল। ওই রায়ে বলা হয়েছিল মিস্ত্রিকে সরিয়ে এন চন্দ্রশেখরনকে তাঁর জায়গায় বসানোর পদক্ষেপ অবৈধ ৷ ওই রায়ে মিস্ত্রিকে টাটা সন্সের পাশাপাশি টিসিএস, টাটা ইন্ডাস্ট্রিজ এবং মহারাষ্ট্রের টাটা টেলিসার্ভিসেসেরও শীর্ষ কর্তা হিসেবে পুনর্বহাল করতে নির্দেশ দেয়।

তবে ওই রায় কার্যকরী করার জন্য চার সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়েছিল এবং তার মধ্যে রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে উচ্চতর আদালতে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। ইতিমধ্যে

টাটা সন্সের পক্ষ থেকে এনসিএলএটি-তে আদেশ কার্যকর করার আগে কিছুটা সময় চাওয়া হয়। বলা হয়েছিল, রায়কে চ্যালেঞ্জ জানানোর আগে উচ্চতর আদালতে। তবে তার জন্য আগামী ৯ জানুয়ারি টিসিএস-এর বোর্ড মিটিং-এ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে বোর্ডের সদস্যদের মতামত জানতে চাওয়া হবে । বৃহস্পতিবার শীর্ষ আদালতে টাটা সন্সের পক্ষ থেকে আদালতে আর্জি জানানো হয়েছে, যাতে ৬ জানুয়ারি থেকেই সংশ্লিষ্ট মামলার শুনানি শুরু হয়।

২০১২ সালের ডিসেম্বরে রতন টাটার টাটা সন্সের চেয়ারম্যান পদ থেকে অবসর নেওয়া পর সাইরাস মিস্ত্রি ষষ্ঠ চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেন। কিন্তু চার বছরের মধ্যেই ২০১৬ সালে মিস্ত্রিকে চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরিয়ে দেয় টাটা সন্স। এর কিছুদিন পরে মিস্ত্রিকে ডিরেক্টরস’ বোর্ড থেকেও সরিয়ে দেওয়া হয় ।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।