নয়াদিল্লি: যুবরাজ সিংকে যারা জানেন তাদের কাছে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের প্রতি ভারতীয় ক্রিকেটারের ভালোবাসার কথাও অজানা নয়। ম্যান ইউ’য়ের অন্ধ ভক্ত যুবি শনিবার লাইভ সেশনে আড্ডা দিলেন ক্লাবের প্রতিশ্রুতিমান তরুণ স্ট্রাইকার মার্কাস রাশফোর্ডের সঙ্গে। ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেট তারকার সঙ্গে ইংল্যান্ডের উঠতি ফুটবল তারকার কথোপকথন নিয়ে পারদ চড়ছিল এদেশের ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে।

শনিবারের সন্ধ্যায় সোনি স্পোর্টসের ফেসবুক লাইভে অবশেষে আড্ডা জমল যুবরাজ-রাশফোর্ডের। রাশফোর্ডে বরাবরই মুগ্ধ যুবি ইংরেজ স্ট্রাইকার সম্বন্ধে একবার বলেছিলেন, ‘লেজেন্ড ইন দ্য মেকিং।’ আর শনিবার ফেসবুক লাইভে যুবি জানালেন রাশফোর্ড তাঁকে ম্যাঞ্চেস্টারের ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর দিনগুলো মনে করায়। ইংরেজ স্ট্রাইকারের তারিফ করে ২০১১ বিশ্বজয়ের নায়ক বলেন, রাশফোর্ডের মধ্যে সমস্ত রসদ রয়েছে রোনাল্ডোর সমতুল্য হয়ে ওঠার।

যুবির কথায়, ‘বল পায়ে রাশফোর্ড যখন গোলের দিকে আগুয়ান হয়, নাটমেগে বিপক্ষ ডিফেন্ডারদের পরাস্ত করে তখন আমার মনে হয় ওর মধ্যে রোনাল্ডোকে ছোঁয়ার সমস্ত ক্যালিবার রয়েছে।’ তবে শুধু রাশফোর্ডই নন। ম্যান ইউ’য়ের ফরাসি স্ট্রাইকার অ্যান্থনি মার্শিয়াল এবং আরেক ইংলিশ স্ট্রাইকার ম্যাসন গ্রিনউডের তারিফও শোনা গিয়েছে পঞ্জাব ক্রিকেটারের গলায়। যুবরাজ বলেন, ‘রাশফোর্ড, মার্শিয়াল, গ্রিনউড আমায় তখনকার সময় রোনাল্ডো, গিগস এবং নিস্তেলরুই’য়ের কথা মনে করায়। আমি আমাদের ফরোয়ার্ড লাইন নিয়ে ভীষণ আশাবাদী।’

একইসঙ্গে রাশফোর্ডকে যুবি বলেন, গত ২০-২২ বছরে যখনই ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের জার্সি বদল হয়েছে তিনি একটা করে নতুন জার্সি কিনেছেন। পাশাপাশি এমিরেটসে আর্সেনাল বনাম ম্যান ইউ ম্যাচ দেখতে যাওয়ার মজার এক স্মৃতি ইংরেজ স্ট্রাইকারের সঙ্গে শেয়ার করে নেন ছয় ছক্কার নায়ক।
যুবি বলেন, ”২০১২ আমি এমিরেটসে ম্যাচ দেখতে গিয়েছিলাম। আমি ইউনাইটেড স্কার্ফ গলায় পরে ছিলাম। ম্যাচটা আমরা ২-১ গোলে জিতেছিলাম। ম্যাচ শেষে বেরিয়ে আসার সময় আর্সেনাল অনুরাগীরা রাগে গজগজ করছিল। তাই আমি আর আমার বন্ধু আমাদের স্কার্ফ খুলে জ্যাকেটের ভিতর ঢুকিয়ে নিয়েছিলাম। বন্ধুর স্কার্ফটাও আমি আমার জ্যাকেটের মধ্যে ঢুকিয়ে নিয়েছিলাম। আর্সেনালের ভারতীয় ফ্যানেরা আমায় দেখে জিজ্ঞেস করেছিল, ‘আরে যুবরাজ আর্সেনালকে সমর্থন করছো নিশ্চয়।”

এরপর যুবরাজকে দেখে তারা বলেন, তোমার ওজন অনেক বেড়ে গিয়েছে। উল্লেখ্য, চলতি মরশুমে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে সব ধরনের প্রতিযোগীতায় ১৯টি গোল এবং ৬টি অ্যাসিস্ট করেছেন রাশফোর্ড। আগামী ১৭ জুন থেকে করোনার পরবর্তী সময় শুরু হচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়র লিগ। প্রথম চারে শেষ করার লড়াইয়ে বাকি সময়টা রাশফোর্ডের উপর অনেকাংশেই নির্ভর করবে ইউনাইটেড। তবে শনিবার ইংলিশ স্ট্রাইকারের সঙ্গে যুবির কথোপকথনের আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতীয় ক্রিকেটারের পা টানেন কেভিন পিটারসন।

চেলসি সমর্থক কেপি বলেন, ‘তোমাদের আলোচনা নিয়ে আমার কোনও আগ্রহ নেই বন্ধু। কোনও চেলসি ফুটবলার থাকলে আমি থাকতাম।’ পালটা দিয়ে যুবি বলেন, ‘আগ্রহ নেই যখন কোনও মন্তব্যও করবে না। চিন্তা করো না, গত মরশুমে আমরা চেলসিকে কতবার হারিয়েছিলাম সেটা নিয়েও আলোচনা হবে।’ শনিবার ভারতীয় সময় রাত ১২টা ৪৫মিনিটে টটেনহ্যাম ম্যাচ দিয়ে লকডাউন পরবর্তী সময় লিগ অভিযান শুরু করবে রেড ডেভিলসরা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ