ম্যাঞ্চেস্টার: জোসে মোরিনহোর টটেনহ্যামের পর পেপ গুয়ার্দিওলার ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। তিনদিনের ব্যবধানে ওলে গানার সোল্কজায়েরের স্ট্র্যাটেজিতে ঘায়েল দুই স্পেশাল কোচ। দিনকয়েক আগে চাকরি খোয়ানোর চাপা শঙ্কা গ্রাস করেছিল নরওয়েন কোচকে। কিন্তু সেসব জল্পনা দূরে সরিয়ে প্রিমিয়র লিগের শেষ দু’ম্যাচের ফলাফলে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে যে এখন সুখের সময়, তা বলাই বাহুল্য।

লিগ টেবিলে ১১ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে ইতিহাদে শনিবাসরীয় ডার্বিতে সিটির মুখোমুখি হয়েছিল ইউনাইটেড। লিংগার্ড-জেমসদের প্রথমার্ধের খেলা দেখে একবারও মনে হয়নি যে তাঁরা অ্যাওয়ে ম্যাচে মাঠে নেমেছেন। তুলনায় ঘরের মাঠে অনেকটাই গুটিয়ে ছিল স্কাই ব্লুজ’রা। তিনকাঠির নীচে এডেরসন তৎপর না থাকলে প্রথম দশ মিনিটের মধ্যেই গোল পেয়ে যেতে পারতেন ড্যানিয়েল জেমস, জেসি লিংগার্ডরা। যদিও খুব বেশি সময় অক্ষত থাকেনি ম্যান সিটির গোলদুর্গ। ২০ মিনিটে ম্যান রাশফোর্ড বিপক্ষ ডিফেন্সের জাল ছিঁড়ে গোলের ডেডলক খোলার চেষ্টা করলে ভুল করে বসে সিটি ডিফেন্স।

পেনাল্টি বক্সে ইংরেজ স্ট্রাইকারকে অবৈধ ট্যাকল করে বসেন দাভিদ সিলভা। প্রাথমিকভাবে রেফারি ইচ্ছুক না থাকলেও ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির দৌলতে পেনাল্টি পেয়ে যায় ম্যান ইউ। সাম্প্রতিক সময়ে দুরন্ত ছন্দে থাকা রাশফোর্ড স্পটকিক থেকে বল জালে রাখতে বিশেষ ভুলচুল করেননি। মিনিট চারেক বাদে রাশফোর্ডের আরেকটি দুরন্ত প্রচেষ্টা প্রতিহত হয় ক্রসবারে। তবে দ্বিতীয় গোলের জন্য অপেক্ষা দীর্ঘায়িত হয়নি রেড ডেভিলসদের। প্রথম গোলের ছ’মিনিট বাদেই ম্যান ইউ’য়ের হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অ্যান্থনি মার্শিয়াল।

বক্সের মধ্যে ফরাসি স্ট্রাইকারের বাঁ-পায়ের ভলি এডেরসনের নাগাল এড়িয়ে কোনাকুনি প্রবেশ করে জালে। গ্যালারিতে বসে থাকা স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের চোখ-মুখেও তখন স্বস্তির ছাপ। পিছিয়ে পড়ে মরিয়া ম্যান সিটির কাছে ব্যবধান কমানোর সুযোগ এসেছিল। কিন্তু ডি ব্রুয়েনার ক্রস থেকে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের ফ্লাইং হেডার অনেকটা বাইরে চলে যায়। পাশাপাশি বিরতির আগে কাইল ওয়াকারের ডানপ্রান্তিক লো ক্রস বক্সের মধ্যে ফ্রেডের হাতে লাগলেও নিশ্চুপ থাকেন রেফারি। যা নিয়ে চতুর্থ রেফারির সঙ্গে মৌখিক বচসায় জড়িয়ে পড়েন পেপ।

বিরতির পর আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে খেলা উপভোগ্য হয়ে উঠলেও ইতিবাচক সুযোগ আদায় করে পারছিল না কোনওপক্ষই। এরইমধ্যে ম্যান সিটির গ্যালারি থেকে ম্যান ইউ মিডফিল্ডার ফ্রেডকে লক্ষ্য করে কোনও কিছু ছোঁড়াকে কেন্দ্র করে সাময়িক উত্তেজনা ছড়ায়। শুধু তাই নয়, ফ্রেড-লিংগার্ডকে উদ্দেশ্য করে বর্ণবিদ্বেষমূলক মন্তব্যও ভেসে আসে। যা নিয়ে ম্যাচ শেষে একটি বিবৃতি প্রদান করেছে ম্যান সিটি কর্তৃপক্ষ। ঘটনায় কেউ দোষী প্রমাণিত হলে তাঁকে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে তাঁরা। ০-২ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে কোণঠাসা ম্যান সিটি ম্যাচে ফেরে ৮৫ মিনিটে। কর্নার থেকে গোল করেন পরিবর্ত ডিফেন্ডার নিকোলাস ওটামেন্ডি।

কিন্তু শেষ অবধি সমতায় ফেরা হয়নি স্কাই ব্লুজ’দের। ২-১ ব্যবধানে জিতেই মাঠ ছাড়ে সোল্কজায়েরের ছেলেরা। এই জয় ম্যান ইউ’কে লিগ টেবিলে তুলে আনল পঞ্চমস্থানে। ১৬ ম্যাচে তাঁদের পয়েন্ট ২৪। অন্যদিকে ১৬ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয়স্থানেই রইল ম্যান সিটি।