রায়পুর: দিল্লির নিজামুদ্দিনের জামাত ফেরত কিশোর স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে কোনও অশালীন আচরণ করেননি, সাফ জানাল রায়পুর এইমস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ওই কিশোরের বিরুদ্ধে অভব্য আচরণের অভিযোগ মিথ্যা বলে জানিয়েছে হাসপাতাল। যদিও খোদ রায়পুরের বিজেপি সাংসদ সুনীল সোনিও ওই কিশোরের বিরুদ্ধে অশালীন আচরণ করার অভিযোগ তুলে মামলা দায়ের করেন।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া জামাত সদস্যদের একটি বড় অংশের বিরুদ্ধেই করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ তোলা হয়েছে। কয়েকদিন ধরেই ছত্তীসগড়ের রায়পুরের হাসপাতালে এক নাবালক জামাত সদস্য ভর্তি রয়েছে। ওই কিশোরের বিরুদ্ধে চিকিৎসক ও হাসপাতাল কর্মীদের সঙ্গে অভব্য আচরণের অভিযোগ ওঠে। রায়পুরের বিজেপি সাংসদ সুনীল সোনিও ওই কিশোরের বিরুদ্ধে অভব্য আচরণ করার অভিযোগ তোলেন।

তবে সোশাল সাইটে ওই কিশোরের আচরণ নিয়ে মিথ্যা খবর প্রচার করা হয়েছে বলে রায়পুরের এইমস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে। এমনকী রায়পুরের সাংসদের অভিযোগেরও কোনও ভিত্তি নেই বলে হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে।

রায়পুরের ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্ত ওই নাবালক কোরবার বাসিন্দা। হাসপাতালের কোনও চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীর সঙ্গেই সে অভব্য আচরণ করেনি। তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ মিথ্যে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা যা যা পরামর্শ দিচ্ছেন ওই কিশোর সেই সব পরামর্শ মেনে চলছে।

এদিকে রায়পুরের সাংসদ ওই নাবালকের আচরণ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। সাংসদ সুনীল সোনি বলেন, ‘ওই নাবালকের ব্যবহার যথেষ্ট অশালীন।’ অন্য়দিকে, ছত্তিশগড় ওয়াকফ বোর্ডের প্রধান সালাম রিজভি সুনীল সোনির মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেন।