বারাসতঃ  শাসনের পর এবার বাগদা। ফের শিশুর দিকে অস্ত্র উচিঁয়ে মাকে গণধর্ষণের অভিযোগ।

পুলিশ সূত্রে খবর, বাগদার হরিহরপুরের মাঝেরপাড়ায় এক বছরের শিশুকে নিয়ে ঘরে ঘুমিয়েছিলেন বছর তেইশের মহিলা। তখন তাঁর স্বামী ছিলেন না সেখানে। আচমকা দুই দুষ্কৃতী ঘরে ঢুকে পড়ে। তারপর ওই শিশুপুত্র জেগে গেলে তার গলায় ধারাল অস্ত্র দেখিয়ে দুই দুষ্কৃতীর একজন তার মাকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ।
ঘটনার পরেই রমজান মণ্ডল ও রফি মণ্ডল নামে ওই দুই দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয় থানায়। ওই মহিলার পরিবারের দাবি, বাগদা থানায় ঘটনার অভিযোগ জানাতে গেলে পুলিশ নির্যাতিতাকে অযথা বসিয়ে রাখে সারারাত। এমনকী, মামলা তুলে নিতে পুলিশের তরফে তাঁদের চাপ দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। পুলিশ ওই দুই পলাতক অভিযুক্তের খোঁজ চালাচ্ছে। ঘটনায় আতঙ্কিত স্থানীয় মানুষজন। ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।
প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিন আগেই উত্তর ২৪ পরগনার শাসনে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে সন্তানের সামনেই মা-কে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। একের পর এক গণধর্ষণের অভিযোগে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।