স্টাফ রিপোর্টার (বাঁকুড়া); এক মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল কয়েক জন যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়া সদর থানা এলাকার কমলাডাঙ্গা এলাকায়। নির্যাতিতা ওই মহিলা বর্তমানে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সূত্রের খবর, জগন্নাথবাটি গ্রামের বছর তিরিশের জনৈকা মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা বাঁকুড়া- রাণীগঞ্জ রাস্তা ধরে কাঞ্চনপুর গ্রামে তার বাপের বাড়ি যাচ্ছিলেন। পথে কমলাডাঙ্গার কাছে কয়েক জন যুবক তাকে কাশফুলের ঝোপ ঝাড়ের মধ্যে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দা হীতেন ঘোষ বলেন, সকাল থেকেই ওই ভদ্র মহিলাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর অর্দ্ধনগ্ন অবস্থায় কমডাঙ্গার কাছে তাকে উদ্ধার করা হয়।

নির্যাতিতার স্বামী তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে দাবী করেন। অন্যদিকে অভিযুক্তদের অন্যতম প্রদীপ ঘোষ সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার সামনে ধর্ষণের অভিযোগ স্বীকার করে বলেন, ওই ঘটনায় তারা মোট সাত জন যুক্ত ছিল। পরিবারের তরফে বাঁকুড়া মহিলা থানায় এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে পুলিশ স্থানীয় বলরামপুর গ্রামের উৎপল ও প্রদীপ ঘোষকে গ্রেফতার করে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। পুলিশের পক্ষ থেকে শনিবার ধৃতদের বাঁকুড়া জেলা আদালতে তোলা হচ্ছে।