মুম্বই : নভেম্বরে ইতালি বা সুইৎজারল্যান্ডে বসতে চলেছে রণ-দীপির বিয়ের আসর৷ তোড়জোড় চলছে বিয়ের প্রস্তুতি৷ বিয়ের কেনাকাটা, গয়না, ভেনিউ সবকিছু জানতে মুখিয়ে রয়েছে ভক্তকূল৷

সূত্রের দাবি, আগামী মাসেই ব্যাচিলার ট্রিপে যাচ্ছেন রণবীর সিং৷ ২৭ কিংবা ২৮ জুলাই রওনা দেবেন খিলজি৷ নিজের ঘনিষ্ঠ কয়েকজন বন্ধুবান্ধব ছাডা় আর কেউ যাবেন না সেই ট্রিপে৷ স্বাভাবিকভাবে তাঁদের বিয়ের প্রতিটি আপডেট পেলেই উত্তেজিত হয়ে পড়ছে ভক্তরা৷

গত পাঁচ বছর ধরে সম্পর্কে রয়েছেন রণবীর সিং-দীপিকা পাড়ুকোন৷ অবশেষে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন বলিপাড়ার এই হট জুটি৷ প্রেম যেমন লুকিয়ে লুকিয়ে করেছেন তেমন বাগদানও সেরেছেন একেবারে পাপারাৎজীর আড়ালে৷ কাক পক্ষীতেও টের পায়নি তাঁদের এনগেজমেন্টের খবর৷ এমনকি বাগদানের আংটিও দুই তারকা খুলে রেখেছেন৷ তাই আরই বোঝার উপায় নেই৷ কিন্তু সত্যিকে আর কত ঢাকা দেবেন রণ-দীপি৷ তাঁদের ঘনিষ্ঠ সূত্রের মাধ্যমে সব খবরই বেরিয়ে যাচ্ছে অন্দরমহল থেকে৷ রণবীর এবং দীপিকা আনঅফিসিয়ালি ইন্ডাস্ট্রির সকলকে বিয়ের আমন্ত্রণ জানিয়ে ফেলেছেন৷ কার্ডের ডিজাইন নাকি এখনও বেছে উঠতে পারেননি তাঁরা, তাই কার্ড দিয়ে আমন্ত্রণ পরে জানাবেন বিয়েরএক-দু মাস আগে৷

আরও পড়ুন : ‘এতোটাই মাদকাসক্ত ছিলাম, মশা কামড়ালে তারাও মরে যেত’

অন্যদিকে বিয়ের গয়না বানানোর জন্যও মাঝে মধ্যেই বেঙ্গালুরু পাড়ি দিচ্ছেন নায়িকা৷ মায়ের সঙ্গে এক নামী গয়না শো রুমের সামনে পাপরাৎজীর ক্যামেরায় ধরা দেন দীপিকা৷ সেই গয়নার কোম্পানি দীপিকার বিয়ের জন্য তৈরি করবে বিশেষ ডিজাইনের ওয়েডিং জুয়েলারি৷ সেই ডিজাইন ঠিক করার জন্য দীপিকার সঙ্গে বেশ কয়েকটা মিটিংও সেরে ফেলেছে সেই কোম্পানি৷ অন্যদিকে রণবীর এবং দীপিকা বেশ কয়েকটি বাড়িও দেখছেন৷ বেঙ্গালুরু একটি বাংলো কিনেছেন বলে জানা গিয়েছেন৷ শোনা গিয়েছে, বিরাট-অনুষ্কা য়খানে ফ্ল্যাট কিনেছেন, সেখানেও নাকি বাড়ির খোঁজ করতে গিয়েছিলেন রণবীর-দীপিকা৷

রণবীরের বাড়িতে রেনোভেশনের কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে৷ রণবীরের বিয়ের জন্য নতুন করে সাজানো গোছানো হচ্ছে সিং পরিবারের বাড়ি৷ এমনকি দীপিকা নিজে দাঁড়িয়ে থেকে প্রতিটি কাজ করছেন বলে সূত্রের দাবি৷ রণবীর এবং দীপিকার রুমটিতে বিশেষ নজর দিচ্ছেন নায়িকা৷ যে বিল্ডিংয়ে রণবীর থাকেন, সেখানেই আরও দুটি নতুন ফ্লোর কিনে নিয়েছেন অভিনেতা৷ ‘সিম্বা’র শ্যুটিংয়ে রণবীর ব্যস্ত, তাই বিয়ের যাবতীয় কাজ দীপিকা সামলাচ্ছেন৷ দু’জন তারকা যতই কুলুপ আটুক মুখে, এত আয়োজন একসঙ্গে যে বিয়েরই জন্য তা আর বলতে বাকি নেই৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.