মুম্বই: অবেশেষে মুক্তি পেয়েছে রানু মণ্ডলের গাওয়া তেরি মেরি কাহানি। পুরো গান শুনতে পেয়েছেন তাঁর ভক্তরা। হিমেশের সঙ্গে গাওয়া এই গানের দুই কলি মুক্তি পেতেই তা ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছিল। বুধবার সেই গান মুক্তি পেল। গান লঞ্চিং-এর অনুষ্ঠানে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি অতীন্দ্র ও তাঁর মেয়ে সাথীকে ঘিরে চলা বিতর্ক নিয়ে কথা বলেন।

রানাঘাট স্টেশনে রানুর গাওয়া সেই গান ভাইরাল হলেই তাঁকে নিয়ে বিভিন্ন খবর ছড়িয়ে পড়ে। তখনই জানা যায়, রানুর মেয়ে এলিজাবেথ সাথী রায় নাকি তাঁকে ফেলে চলে গিয়েছিলেন। মায়ের দেখাশোনাও করতেন না মেয়ে। এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে রানু বলেন, আমি অতীত ঘাঁটতে চাই না। ঈশ্বরের কৃপায় আমরা আবার সবাই এক হাতে পারব।

কিছুদিন আগেই সংবাদমাধ্যমের কাছে রানু মণ্ডলের মেয়ে এলিজাবেথ সাথী জানিয়েছিলেন, তাঁর মা-কে সমস্ত ভাবে চালনা করছেন অতীন্দ্র ও তপন। রানুর থেকে টাকাও নিচ্ছেন তাঁরা। এই বিষয়েও রানু সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছিলেন, আমার মনে হয় কোনও ভুল বোঝাবুঝি চলছে। অথবা এলিজাবেথকে এই ধরনের কথা বলতে কেউ প্ররোচনা দিচ্ছে। অতীন্দ্র ও তপন দুজনেই আমার খেয়াল রাখছে। আই এসব জানি না যে, ওরা এলিজাবেথকে হুমকি দিয়েছে।

মুম্বইযে রানুর গান প্রথম বার শুনেই গান গাওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন হিমেশ রেশামিয়া। কথা মতোই তাঁর আসন্ন ছবি হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর-এ তিনটি গান গেয়েছেন রানু মণ্ডল। এই অভিজ্ঞতা সম্পর্কে রানু বলেন, আমি রেকর্ডিং-এর সময়ে যখন কানে হেডফোন পরি, তখন যেন আত্মবিশ্বাস আমার আরও বেড়ে যায়। আমি সব সময়ে লতাজি, মহম্মদ রফি ও কিশোর কুমারের গান শুনতাম ও শিখতাম।

রানু আরও বলেন, আমি যদি এই ভালোবাসা না পেতাম, তা হলে আমি হয়তো এই গানগুলি গাইতেই পারতাম না। ভগবানের ভালোবাসা রয়েছে, তাই আমি গাইতে পেরেছি। আমি যখন গান গাইতাম আমি বুঝতে পারতাম না। কিন্তু নিজের গলার উপরে আমার ভরসা রয়েছে। আমি লতাজির গান থেকেই অনুপ্রাণিত হয়েছি। ছোটবেলায় ওনার গানই গাইতাম। ভবিষ্যতেও গাইতাম। আমি কখনও আশা ছাড়িনি। হিমেশ যত বড় মঞ্চ আমায় দিয়েছে, তা পাওয়ার কথা আমি জীবনেও ভাবতে পারিনি। তবে আগে আমি মঞ্চে গান গেয়েছি। কিন্তু তার পরে বহুদিন সেই সব থেকে দূরে চলে গিয়েছিলাম।

হিমেশ সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, সলমন খানের বাবা সেলিম খান রানু মণ্ডলকে সাহায্য করার জন্য তাঁকে উৎসাহ দিয়েছেন। হিমেশের কথায়, সেলিম আঙ্কল আমায় একবার বলেছিলেন, যখনই কোনও প্রতিভাবান মানুষ দেখবে তাঁকে উৎসাহ দেবে। রানুজি এত সুন্দর গান যে তাঁকে এই জায়গাটা যেতেই হতো।

প্রসঙ্গত, হিমেশের ছবি হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর ছবির ট্রেলার এখনও মুক্তি পায়নি। কিন্তু রানু ও হিমেশের গাওয়া তেরি মেরি কাহানি মুক্তি পেয়ে গিয়েছে। ট্রেলার মুক্তির আগেই সবকটি গান প্রকাশ করবেন এই ছবির প্রযোজকরা।