নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: জয় শ্রীরাম ধ্বনির পাশাপাশি এবার থেকে জয় মা কালীও বলা হবে, এমনটাই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। আর সেই প্রসঙ্গ টেনেই অভিষেক বললেন, ‘বাংলায় রামের টিআরপি কমেছে, তাই মা কালীর টিআরপি বাড়ছে।’

মঙ্গলবার বিকেলে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে একটি র‍্যালি করে তৃণমুল। গোলপার্কের সেই সভায় বক্তব্য রাখেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো আভিষেক। সেখানেই ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনির প্রসঙ্গ টেনে এই মন্তব্য করেছেন অভিষেক। তিনি বলেন, ‘বিজেপি বলছে, তারা নাকি এবার জয় মা কালীও বলবে। বাংলায় রামের টিআরপি কমেছে, তাই মা কালীর টিআরপি বাড়ছে।’

এই প্রসঙ্গে অভিষেক ফের একবার স্লোগানের যুদ্ধ উস্কে দেন। বলেন, আমরা বলব, ‘জয় হিন্দ, জয় বাংলা, জয় পশ্চিমবঙ্গে, মা-মাটি-মানুষ জিন্দাবাদ।’ বলেন, বিজেপি নেতারা ফোন ব্যবহার করতে পারছেন না, কারণ তাঁদের ফোন খুললেই ‘জয় হিন্দ, জয় বাংলা’ লেখা মেসেজ ঢুকছে।

উল্লেখ্য, তৃণমুল নতুন পন্থায় এই ‘জয় হিন্দ, জয় বাংলা’ স্লোগান পৌঁছে দিচ্ছে বিজেপি নেতাদের কাছে। মেসেজ পাঠানো হচ্ছে বিজেপি নেতাদের ফোন নম্বরে। ইতিমধ্যেই সেই স্ক্রিনশটও পোস্ট করেছেন বাবুল সুপ্রিয়।

অভিষেক বলেন, ‘আমিও জয় শ্রী রাম বলি। তবে, সেটা পুজোর ঘরে।’

‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনির পাশাপাশি এবার থেকে বিজেপি নেতা কর্মীদের মুখে শোনা যাবে জয় মা কালী ধ্বনি। এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। সোমবার রাজ্যে এসে তিনি বলেন, ‘নেতাকর্মীরা জয় মা কালীও বলবেন। কারণ আমরা জানি বাংলা মা কালীর দেশ।

গত কয়েকদিনে বারবার জয় শ্রীরাম ধ্বনি শুনে মেজাজ হারিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রসঙ্গে কৈলাশ বলেন, ”আমি বুঝতে পারছি না মমতা জয় শ্রী রাম ধ্বনি শুনে রেগে যাচ্ছেন কেন। ঈশ্বরের নাম করা অপরাধ নাকি! আমরা চাইব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার এ ধরনের আচরণের ব্যাখ্যা দিক।”

এমনকি ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি শুনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আচরণ মোটেই ভালো চোখে দেখছেন না একসময়ের প্রথম সারির অভিনেত্রী তথা বিশিষ্ট পরিচালক অপর্ণা সেনও।

কিছুদিন আগেই নৈহাটি থেকে ফেরার পথে গাড়ির সামনে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান শুনে ক্ষুব্ধ হয়ে নেমে আসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাগের মাথায় ভাষাজ্ঞান হারিয়ে ফেলেন তিনি। কার্যত যা মুখে আসে তাই বলেন সেদিন। এমনকি ফের গাড়িতে উঠে গেলে, আবার ওঠে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান। আবারও নেমে আসেন মমতা। সেই ভিডিও বাংলা ছাড়িয়ে গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। ‘জয় শ্রী রাম’ শুনলেই রেগে যাচ্ছেন মমতা, সেই বার্তা ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে। রীতিমত ইস্যু হয়ে যায় ‘জয় শ্রী রাম’।