নয়াদিল্লি: নিন্দুকেরা যাই বলুক, যোগগুরু হিসেবে বেশ সুনাম রয়েছে রামদেবের। তাঁর যোগা থেরাপিতে উপকার পেয়েছেন অনেকেই। তবে তিনি যে কখন কোন ডালে বিচরণ করছেন, তা বোঝা মুস্কিল। এই ক’দিন আগেই তিনি বলছিলেন, রাজনীতিতে তাঁর বিশেষ আগ্রহ নেই। মোদী প্রধানমন্ত্রী হবেন কিনা, সেটা বলতেও বাধো বাধো ঠেকছিল তাঁর। অথচম গত লোকসভা নির্বাচনের সময়ও গেরুয়া শিবিরে যথেচ্ছ আনাগোনা করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। এবার ফের ইউ-টার্ন নিলেন সেই রামদেব।

লোকসভা নির্বাচনের মধ্যে মোদীর হাত শক্ত করার বার্তা দিলেন তিনি। বললেন, ‘ভারতকে শক্তিশালী রাষ্ট্র হিসেবে গড়তে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাত শক্ত করতে হবে’। পাশাপাশি জানান প্রধানমন্ত্রী মোদী তাঁর ঘনিষ্ঠ বন্ধু।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর জয়পুর গ্রামীণ কেন্দ্র থেকে নির্বাচনে লড়ার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিলেন মঙ্গলবার। সঙ্গে ছিলেন রামদেব। ‘আর্থিক এবং রাজনৈতিকভাবে আগামী কুড়ি পঁচিশ বছরের মধ্যে ভারতকে বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ শক্তি হিসেবে গড়তে প্রধানমন্ত্রীর হাত শক্ত করা প্রয়োজন। তাঁর হাতে দেশ নিরাপদ। সশস্ত্র বাহিনীর জওয়ানদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত। মোদীর হাতে কৃষকদের জীবনও সুরক্ষিত।’ তাঁকে ভারত মায়ের গর্ভ বলে অভিহিত করে যোগগুরু বলেন, ‘দেশকে রক্ষা করার ক্ষমতা যদি কারও থেকে থাকে তা শুধু প্রধানমন্ত্রীরই আছে।’

২০১৫ সালে হরিয়ানার ‘মুখ’ নির্বাচিত হন রামদেব। কিন্তু পরে নিজেকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে গুটিয়ে নেন তিনি। কিছুদিন আগেই বলেছিলেন, আগামী লোকসভা নির্বাচনে কোনও দল বা কোনও বিশেষ ব্যক্তিকে তিনি সমর্থন করবেন না। তাঁর কথায় ‘রাজনীতির প্রতি আমার আগ্রহ নেই। আমাদের কোনও রাজনৈতিক বা ধর্মীয় উদ্দেশও নেই। যোগ এবং বেদের সাহায্যে আধ্যাত্মিক দেশ গড়ার কাজ করছি আমরা।’