নয়াদিল্লি: জেএনইউ-তে পড়ুয়াদের আন্দোলনে পাশে দাঁড়িয়েছিলেন দীপিকা পাডুকোন। সরাসরি জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে পড়ুয়াদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন বলিউড ডিভা। আর তারপর থেকেই ওই ইস্যুতে সরগরম রাজনীতি। এবার তাতে মন্তব্য করে বসলেন বাবা রামদেব।

দীপিকাকে কটাক্ষ করে রামদেব বলেন, দীপিকার তাঁর মতো পরামর্শদাতা প্রয়োজন। সোমবারে ইন্দোরে একটি অনুষ্ঠানে এসে তিনি বলেন, “দীপিকা অত্যন্ত ভালো অভিনেত্রী। কিন্তু ‘দীপিকার আগে দেশের সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ইস্যুগুলি নিয়ে পড়াশোনা করা উচিত। তাতে দেশ সম্পর্কে আরও জ্ঞান বাড়বে তাঁর। জ্ঞান আহরণের পরেই তিনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন।’

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে দৃঢ় ভাবে সমর্থন করে রামদেব বলেন, যারা সিএএ-এর পুরো নাম পর্যন্ত জানেন না, তারাও মোদী সম্পর্কে ‘অশালীন’ মন্তব্য করতে শুরু করেছে। তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, এই আইন নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার জন্য নয়। তবুও মানুষ এ নিয়ে আগুন জ্বালাচ্ছে।”

আরও পড়ুন – অবশেষে প্রত্যাশাপূরণ, দুর্ঘটনা এড়াতে তৈরি হচ্ছে সাবওয়ে

রামদব দাবি করেন, ২ কোটি লোক ভারতে এসে অবৈধ ভাবে থাকছে। ” পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, কোনও দেশকেই ‘ডাম্পিং ইয়ার্ড’ হিসেবে ব্যবহার করা উচিৎ নয়। অবৈধ ভাবে প্রবেশকারী ব্যক্তিদের ভারতে থাকতে দেওয়া উচিৎ নয় বলে মন্তব্য করেন রামদেব।

উল্লেখ্য, জেএনইউতে দীপিকা যাওয়ার পরেই বিজেপি নেতা তেজিন্দর পাল সিং বগ্গা দীপিকা পাড়ুকোনের সব ছবি বয়কটের ডাক দেন। দীপিকাকে বিঁধে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘‘আমি জানি না কেন গিয়েছিলেন উনি। ওটা শ্যুটিংয়ের জায়গা নয়। আরও বিভ্রান্তি বাড়ানো যুক্তিসংগত নয়। জেএনইউ যেতে পারেন, বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়, অবশ্যই যাওয়া উচিত। যাতে ওখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, পড়াশোনার পরিবেশ ফেরে, সেদিকে সকলের সচেষ্ট হওয়া জরুরি’’।

তবে নেটিজেনদের একটা বড় অংশ দীপিকার পাশে দাঁড়িয়েছে৷ জেএনইউ-তে ছুটে যাওয়ার জন্য রণবীর ঘরনীকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছে বলিউডের একাংশ৷ পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ, অনুভব সিনহা, অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর, সিমি গেরিওয়াল, পুজা ভাট, রিচা চাড্ডা থেকে সংগীতকার বিশাল দাদলানি, সমস্বরে প্রত্যেকে দীপিকা পাড়ুকোনের এই জেএনইউ যাওয়ার সিদ্ধান্তকে ‘সাহসিকতার’ পরিচয় বলে আখ্যা দেন।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।