লখনউ: এই বছরের শেষেই রাম মন্দির নির্মাণ কাজ শুরু হবে৷ এমনই দাবি শিবসেনা মুখপাত্র ও রাজ্যসভার সাংসদ সঞ্জয় রাউত৷ তিনি বলেন সুপ্রিম কোর্টে এই মামলা চলছে ঠিক কথা, কিন্তু রাম মন্দির ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কথাই তাঁদের কাছে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের মত৷

সাধারণ মানুষ রাম মন্দিরের পক্ষে৷ সেই রায়কে অগ্রাহ্য অধিকার বা ক্ষমতা কারোর নেই৷ এমনই দাবি সঞ্জয় রাউতের৷ তিনি এদিন বলেন ১২৫ কোটি মানুষ বিজেপিকে ক্ষমতায় এনেছে রাম মন্দির গঠনের স্বপ্ন বাস্তবায়িত করা হবে বলে৷ সেই জনাদেশকে কেউই অবহেলা করার সাহস দেকাবে না৷ সুপ্রিম কোর্ট নিজের কাজ করুক, কিন্তু আমাদের নিজেদের কাজে অটল থাকতে হবে৷

আরও পড়ুন : আরএসএসের নিষ্ঠা থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত আমাদের : শরদ পাওয়ার

এদিন সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাতকারে রাউত বলেন শিবসেনার কাছে সুপ্রিম কোর্টের অর্থ মোদী-শাহ-যোগী৷ আর অবশ্যই সাধারণ মানুষ৷ তাঁদের সিদ্ধান্ত মাথায় তুলে নেওয়া হবে৷ এই নির্বাচনের সবচেয়ে বড়ে ইস্যু ছিল রাম মন্দির, তা ভুললে চলবে না৷

অযোধ্যা সমস্যার সমাধান না হলে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার নেবে বলেই মনে করছেন শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত। তিনি বলেছেন, “২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের আগে আমরা অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম। কিন্তু তা হয়ে ওঠেনি। এবারেও আমরা ভগবান রামের নামেই ভোট চেয়েছি।” একই সঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন যে ভোটের আগে অযোধ্যায় শিবসেনা সাধু সমাবেশ করেছিল। দলের প্রধান উদ্ভব ঠাকরে নিজে অযোধ্যায় গিয়েছিলেন।

তাই সঞ্জয় রাউতের আশংকা এবার যদি রাম মন্দির নির্মাণ না হয় তাহলে সাধারণ মানুষের আমাদের উপর থেকে বিশ্বাস উঠে যাবে। রাগের চোটে মানুষ আমাদের জুতো পেটা করতে আসবে।”

আরও পড়ুন : কাঠুয়া মামলার রায় ঘোষণা, প্রধান তিন অভিযুক্তের যাবজ্জীবন সাজা

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শেষের দিকে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে বৈঠক ডেকেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। ওই সংগঠনের কার্যনির্বাহী সভাপতি অলোক কুমার বলেছেন, “আমাদের অবস্থান খুব স্পষ্ট। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ দু’টি বিষয়ের উপরে কোনও সমঝোতা করবে না। প্রথম, রামের জন্মভূমিতেই রাম মন্দির নির্মাণ করতে হবে। আর দ্বিতীয় হচ্ছে, অযোধ্যার সাংস্কৃতিক সীমানার মধ্যে কোনও মসজিদ নির্মাণ করা চলবে না।”

এর আগে, বিজেপিকে বড় ভাই আখ্যা দিয়ে শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বলেছিলেন জাতীয় রাজনীতিতে চিরকাল শিবসেনা বিজেপিকে বড় ভাইয়ের জায়গা দিয়েছে৷ মোদীর মত নেতা দেশে আরেকটা খুঁজে পাওয়া মুশকিল৷ আগামী ২৫ বছরে মোদীকে হারাতে পারবেন, এমন কোন নেতা তৈরি হবে না৷ জানুয়ারি মাসেই লোকসভা ভোটে একসাথে লড়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি-শিবসেনা৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।