রোহতক : ধর্ষক বাবা রাম রহিমের কারাদণ্ডের আদেশ হয়েছে অগাস্ট মাসে৷ তারপর থেকে জেলেই আছে ধর্ষক বাবা৷ কিন্তু জেলে তার কেমন পরিচর্যা চলছে? তা নিয়ে আগ্রহ তুঙ্গে৷ সম্প্রতি সামনে এসেছে সেই তথ্য৷

জামিনে ছাড়া পেয়ে সম্প্রতি জেলের বাইরে এসেছে রাহুল জৈন নামে এক ব্যক্তি৷ সে জানিয়েছে, জেলে বিশেষ পরিচর্যা পায় রাম রহিম৷ জৈন জানিয়েছে, কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল বাবা রাম রহিম একই জেলে আছে৷ কিন্তু কেউ কোনওদিন তাকে দেখেনি৷ যেখানে বাবা থাকত, সেখানে কারোর যাওয়ার অনুমতি ছিল না৷ যখন রাম রহিম সেল থেকে বেরোত, তখন বাকি সবাইকে তালাবন্ধ করে দেওয়া হত৷

শুধু তাই নয়৷ জৈন আরও একটি অভিযোগ তুলেছে৷ সে জানিয়েছে, রাম রহিমকে যখন জেলে নিয়ে আসা হল, তখন অন্য কয়েদীদের সাধারণ জিনিস থেকেও বঞ্চিত করা হয়েছিল৷ “যখন থেকে সে এসেছে, অনেকের অনেক সমস্যা শুরু হয়৷ আগে আমরা শান্তিতে ঘুরেফিরে বেড়াতে পারতাম৷ কিন্তু পরে সেটি পালটে যায়৷ আমাদের সাধারণ চাহিদা, যেমন জামাকাপড়, জুতো, এগুলোও আসা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল৷ জেল কর্তৃপক্ষ বলছিল রাম রহিম বাবা কাজ করছে৷ কিন্তু কোনওদিন কেউ তাকে কাজ করতে দেখেনি৷” বলেছে জৈন৷

সাধারণত কোনও কয়েদীর সঙ্গে সাক্ষাতের সময় ২০ মিনিট৷ কিন্তু রাম রহিমের ক্ষেত্রে সেই সময় ছিল ২ ঘণ্টা৷

২ নাবালিকাকে ধর্ষণের দায়ে বাবা রাম রহিমকে কারাদণ্ডের আদেশ দেয় আদালত৷ ২০ বছরের কারাদণ্ডের সঙ্গে তাকে জরিমানাও করা হয়৷