বারাসত: অযোধ্যায় রামমন্দিরের শিলান্যাসের দিন উত্তর ২৪ পরগণার বারাসত ও মধ্যমগ্রামে হল রামের পুজো৷ ওই পুজোতে অংশগ্রহন করেছেন হিন্দু ও মুসলিম উভয়েই৷ দুই সম্প্রদায়ের মানুষ একসঙ্গে মিলিত হয়ে রামের পুজোর মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা দিলেন৷

বুধবার বারাসতের নপাড়ার নিবেদিতা পল্লিতে ও মধ্যমগ্রাম নতুন পল্লীতে জাঁকজমক করে অনুষ্ঠিত হল রামের পুজো৷ বারাসতে পুজোর উদ্যোক্তা ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা তথা উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বিজেপি সংখ্যালঘু সেলের জেলা সভাপতি রাজীব আহমেদ খান৷

বারাসাত সাংগঠনিক জেলার মাইনরিটি সেল এর আয়োজনে সেখানে রামের পুজো হয়৷ অন্যদিকে মধ্যমগ্রামের পুজোর শুরুতে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির বারাসত সাংগঠনিক জেলা সভাপতি শঙ্কর চট্টোপাধ্যায়৷

রামমন্দিরের ভিত পুজো শুরু হওয়ার দিন মুসলিম অধ্যুষিত মধ্যমগ্রাম নতুন পল্লীতে জাঁকজমক করে অনুষ্ঠিত হল রামের পুজো৷ হিন্দুরা রামের পুজোপাঠে অংশ নিলেও মুল উদ্যোক্তা এবং অংশগ্রহণকারীদের সিংহভাগ ছিল সংখ্যালঘু মানুষ৷

অংশগ্রহণকারীদের দাবি, একতা, শান্তি ও সম্প্রীতির কথা মাথায় রেখেই রামের পুজোয় সক্রিয় অংশ নিয়েছেন৷ এর মধ্যমে তারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তাও দিলেন৷

জেলার বিজেপি সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি রাজীব আহমেদ খান জানালেন, রাম সবার মধ্যেই আছে৷ রাম রহিমকে মনের মধ্যে নিয়েই আমরা একসঙ্গে বাঁচি৷ রাম মন্দিরের প্রতিষ্ঠা দিবসে রামের পুজো করে এমনই বার্তা দিলেন তিনি৷

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা