মুম্বই: জাতপাতের রাজনীতি এবং ভেদাভেদ করে রাজনীতি করা নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু সেই বিষয়েই উলটো সুর শোনা গেল বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের গলায়।

কেন্দ্রে দ্বিতীয়বারের জন্য মোদী সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য এই জাতপাত এবং ভেদাভেদের রাজনীতি বিশেষভাবে কাজ করেছে বলে দাবি করেছেন সর্বভারতীয় স্তরের এই বিজেপি নেতা। তিনি দাবি করেছেন যে গত পাঁচ বছরে এই সকল বিষয় ভারতীয় রাজনীতি থেকে মুছে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই কারণেই সপ্তদশ লকসভা নির্বাচনে এসেছে বিশেষ সাফল্য।

শুক্রবার মহারাষ্ট্রে এজ জনসভায় হাজির ছিলেন রাম মাধব। সেখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে জাতপাতের রাজনীতির নিয়ে মন্তব্য করেছেন তিনি। তিনি বলছেন, “খুব সাধারণ রাজনৈতিক খেলার মাধ্যমে বিজেপি কেন্দ্রের ক্ষমতা দখল করেনি।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “জাত এবং ধর্মের ভিত্তিতে মানুষকে ভাগ করে আমরা ফের ক্ষমতায় ফিরিনি।”

কোনও প্রকারের মেরুকরণ বা তোষণ করে বিজেপি দ্বিতীয়বারের জন্য দেশ শাসনের অধিকার পায়নি বলে দাবি করেছেন রাম মাধব। সেই সঙ্গে তাঁর আরও দাবি, “এই সকল বিষয় মুছে ফেলতে পেরেছে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন এনডিয়া সরকার। সেই কারণেই দেশবাসি ফের একবার কেন্দ্রের মসনদে মোদীকেই বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।”

গত শুক্রবারে পূর্বের রাজ্য ত্রিপুরায় হাজির ছিলেন বিজেপির এই জাতীয় নেতা রাম মাধব। সেখানেও তিনি মোদী সরকারের একগুচ্ছ প্রশংসা করেছিলেন। পাশাপাশি তাঁর দল ভারতীয় জনতা পার্টি সম্পর্কেও শোনা গিয়েছে ভবিষদ্বানী। আগর‍তলার জনসভায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, “ভারতে কংগ্রেস সব থেকে বেশি দিন শাসন করেছে। ১৯৫০ সাল থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত কেন্দ্রে কংগ্রেসের সরকার ছিল। আমি নিশ্চিত যে নরেন্দ্র মোদী সেই রেকর্ড ভেঙে দেবেন।” এরপরেই তিনি বলেন, “আমাদের দেশের স্বাধীনতা লাভের ১০০ বছরের পূর্ণ হওয়ার সময়ে অর্থাৎ ২০৪৭ সালেও কেন্দ্রে বিজেপির সরকার থাকবে।”

ওই সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়েই আগামী অল্প কয়েক বছরে যে সুদিন আসন্ন তা স্পষ্ট ভাষায় বিঝিয়ে দিয়েছেন রাম মাধব। তিনি দাবি করেছেন যে আগামী তিন বছরের মধ্যে দেশে কোনও বেকার থাকবে না। তিনি বলেছেন, “বর্তমানে দেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিজেপির মোদী, ভবিষ্যতেও এই ধারা বজায় থাকবে। ২০২২ সালের মধ্যে আমরা নতুন ভারত গড়ব। সেই ভারতে গৃহহীনতার কোনও চিহ্ন থাকবে না। থাকবে না বেকারত্বের কোনও চিহ্ন।”

এই ধারা আগামী আরও সিকি শতক সময়েও বজায় থাকবে বলে দাবি করেছেন রাম মাধব। কারণ ২০০২ সালের ২৫ বছর পরে আসবে ২০৪৭ সাল। যা কিনা দেশের স্বাধীনতার ১০০ বছর। সেই সময়ে বিশ্বের দরবারে ভারতের অবস্থান এক নতুন রূপ পাবে বলেও দাবি করেছেন এই বিজেপি নেতা। তাঁর মতে, “২০৪৭ সালে স্বাধীনতার শতবর্ষে ভারত বিশ্বগুরু হিসেবে জায়গা করে নেবে।”

মোদী সরকারের প্রশংসার সঙ্গে তাঁর দল ভারতীয় জনতা পার্টি সম্পর্কেও অনেক কথা বলেছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা রাম মাধব। এক বছর আগে প্রথমবারের জন্য ক্ষমতা পাওয়া রাজ্য ত্রিপুরায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, “জাতীয়তাবাদ বিজেপির ডিএনএ-তে রয়েছে, এটাই বিজেপির পরিচয়। ভোটের সময়েই হোক বা পরে বিজেওই মানেই জাতীয়তাবাদ এবং জাতীয়তাবাদ মানেই বিজেপি।”

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা