অযোধ্যা: বিতর্কিত অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়’কে রামলাল্লা বিরাজমান পক্ষের আইনজীবীরা এবার দেবতার উদ্দেশে অর্পণ করতে চলেছেন। ২৪ নভেম্বর এই উদ্দেশে অযোধ্যাতে যাচ্ছেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতৃত্ব সহ আইনজীবীরা।

অযোধ্যা মামলায় গত ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায়ের পর কেটে গিয়েছে কয়েক সপ্তাহ। অযোধ্যা থেকে নেপালের জনকপুরের উদ্দেশে ইতিমধ্যেই বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ডাকে শুরু হয়েছে ‘রাম বারাত’ যাত্রা। অযোধ্যায় রাম জন্মভূমিকে ঘিরে মন্দির নির্মাণের জন্য ধীরে ধীরে শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। উঠে আসছে ভোগের অর্পণ সামগ্রী ঘিরেও বহু তথ্য।

জানা গিয়েছে, আগামী ২৪ নভেম্বর অযোধ্যায় রাম লালা বিরাজমান পক্ষের আইনজীবীরা রাম জন্মভূমি মন্দিরে গিয়ে অর্পণ করে আসবেন অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়ের একটি কপি। সুপ্রিম কোর্টের সদ্য প্রাক্তন বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চের ঐতিহাসিক রায়ের কপি রামের মন্দিরে থাকবে বলে জানা গিয়েছে। অযোধ্যায় সমারোহ অযোধ্যায় সমারোহ গত ৯ নভেম্বর ঐতিহাসিক রায়ে সাফল্যের জন্য আগামী ২৩ তারিখ রামলালা বিরাজমান পক্ষের আইনজীবিদের সম্মানিতও করা হবে বলে জানা গিয়েছে। আর আর এই আয়োজন করতে চলেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ।

সূত্রের খবর, ২৪ জন আইনজীবী সম্মানিত হতে চলেছেন। রাম লালা বিরাজমান পক্ষের ২৪ জন আইনজীবীকে সম্মানিত করা হবে করসেবকপুরমে। এই আইনজীবীদের মধ্যে সবচেয়ে বর্ষীয়ান ৯৩ বছরের কেশব পরসরান। তাঁকে সেদিন বিশেষভাবে সম্মানিত করা হবে বলে জানা গিয়েছে। রামলালার ভোগের জন্য কী নিবেদিত হবে? রামলালার ভোগের জন্য কী নিবেদিত হবে? জানা গিয়েছে, বিহারের হনুমান টেম্পল ট্রাস্টের তরফে অযোধ্যার রামলালার জন্য অর্পণ করা হবে গোবিন্দ ভোগ চালের ভোগ প্রসাদ। সেই ঘোষণা গতকালই ট্রাস্টের তরফে করে দেওয়া হয়েছে।

এই অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে তিনজন ম্যাজিস্টড়টকে দেখাশোনা এবং পরিচালনার দায়িত্বভার দেওয়া হয়েছে। আইনজীবী সহ বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সফরে যাতে কোন অসুবিধা না হয় তা দেখার জন্য।