মুম্বই: টেলিভিশনে হবে ড্রামা আর তাতে রাখি সাওয়ান্ত থাকবে না তা কি করে হয় ! দর্শকের মতে তার থেকে বেশি ড্রামা কুইন বলিউডে কেউই নেই। বিগ বসের নজরদারিতে অভিনব শুক্লার সাথে তার প্রেম এখন এই শো এর টিআরপির অন্যতম কারণ।

সম্প্রতি বিগ বস ১৪-র ঘরে যান রাখি সাওয়ান্ত। বিগ বসের ঘরে পৌঁছে তিনি সাফ জানিয়ে দেন অর্থের জন্যই তার বিগ বসের ঘরে আসা ।  বিগ বসের ঘর আলো করে তাঁর ড্রামা ও বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য চড়চড় করে বাড়তে থাকে টিআরপি।

অভিনব শুক্ল এলং রুবিনা দিলায়েকের সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক তৈরী হয় রাখি সাওয়ান্তের ।  অভিনব-রুবিনার সঙ্গে বন্ধুত্বের মাঝেই ফের বিতর্কে রাখির জীবন ।  অভিনব শুক্লকে ভালবেসে ফেলেছেন তিনি । রুবিনা যতই বিরোধিতা করুক বা যতই চেষ্টা করুন না কেন অভিনয়ের কাছে থেকে কেউ রাখি কে সরাতে পারবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

বিতর্ক জোরদার হয়ে ওঠে যখন নিজের সারা শরীরে অভিনবের নাম লিপস্টিক দিয়ে লিখতেও দেখা যায় টেলিভিশনের ড্রামা কুইনকে।  রাখি সাওয়ান্তের ওই ভিডিয়ো প্রকাশ্যে আসার পরপরই তা দ্রুত ভাইরাল হতে শুরু করে।

আগে রাখি সাওয়ান্ত জানিয়েছিলেন রীতেশের সঙ্গে তিনি আর বিয়ে টিকিয়ে রাখবেন না।  রীতেশের প্রথম পক্ষের স্ত্রী এবং সন্তান শুধুমাত্র রাখির জন্য নিজের জীবন থেকে বঞ্চিত হবেন এতে তিনি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারবেন না তাই রাখির এই সিদ্ধান্ত তাঁর ।  রীতেশের সঙ্গে বিয়ে ভেঙে বেরিয়ে যেতে চান বলে জানান রাখি সাওয়ান্ত।  রাখি সাওয়ান্ত আরও জানান, বিয়ের দিন জানতে পারেন, রীতেশের একবার বিয়ে হয়ে গিয়েছে। তাঁর স্বামীর প্রথম পক্ষের স্ত্রী এবং এক সন্তান রয়েছে।  এই কথাগুলো তিনি তিনি প্রকাশ্যে কাউকে জানাতে পারেননি কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তিনি তার ধৈর্য হারান । সব মিলিয়ে পেজ থ্রি র পাতা আপাতত সরগরম হয়ে উঠেছে রাখিকে ঘিরে বিগ বস শো নিয়ে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।