নয়াদিল্লি: বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লিতে প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা রাজনাথ সিংয়ের বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করলেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। জ্যোতিরাদিত্যের সঙ্গে দেখা করার পরই টুইট করেন রাজনাথ। টুইটে বিজেপির এই শীর্ষ নেতা লেখেন, ‘জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে আজ দেখা হল। বিজেপিতে তাঁকে স্বাগত জানাচ্ছি। তাঁর অন্তর্ভুক্তি দলকে আরও শক্তিশালী করবে। তাঁর প্রতি শুভেচ্ছা রইল।’

বুধবারই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। দিল্লিতে দলের সদর কার্যালয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার উপস্থিতিতে ঘটে এই মেগা দলবদল। দলে যোগ দিয়েই গেরুয়া শিবিরকে দরাজ সার্টিফিকেট দেন জ্যোতিরাদিত্য। তিনি বলেন, ‘বিজেপির হাতেই দেশ সুরক্ষিত।’ বিজেপির হাত ধরেই জনসেবায় তিনি প্রস্তুত বলেও জানান। একইসঙ্গে কংগ্রেস তার লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হয়েছে বলেও মনে করেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া।

বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পুরস্কারও মিলেছে হাতেনাতে। গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েই বিজেপির রাজ্যসভার প্রার্থী হয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। বিজেপি সূত্রে আরও খবর, শুধু সাংসদ করাই নয়, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পদ দেওয়া হতে পারে সিন্ধিয়াকে। সেই জন্যই তাঁকে রাজ্যসভায় নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে

কংগ্রেসের সঙ্গে দীর্ঘ সম্পর্ক চুকিয়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। মধ্যপ্রদেশের ২১ কংগ্রেস বিধায়ককে নিয়ে কংগ্রেস ছেড়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। দল ছাড়া ওই কংগ্রেস বিধায়কদের মধ্যে মধ্যপ্রদেশ মন্ত্রিসভার ৬ সদস্যও রয়েছেন।

মধ্যপ্রদেশে কমলনাথ মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক খুব একটা মধুর ছিল না জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার। একাধিক ইস্যুতে রাজ্য সরকারের সমালোচনাও করতে দেখা গিয়েছে জ্যোতিরাদিত্যকে। সম্প্রতি শিক্ষকদের দাবি-দাওয়া প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারকে তুলোধনা করেন জ্যোতিরাদিত্য।

সম্প্রতি প্রকাশ্যে মধ্যপ্রদেশে ভোটের আগে কংগ্রেসের দেওয়া প্রতিশ্রুতির প্রসঙ্গ তুলে মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথকে নিশানা করেন সিন্ধিয়া। তখন থেকেই মিলেছিল ইঙ্গিত। জ্যোতিরাদিত্য দল ছাড়তে পারেন বলে জল্পনা তৈরি হয়েছিল সেই সময়েই।

তলে তলে জ্যোতিরাদিত্যের সঙ্গে নাকি সেই সময় থেকেই যোগাযোগ শুরু করেছিল গেরুয়া শিবির। তাঁকে দলে টানতে একাধিক প্রতিশ্রুতিও নাকি দেওয়া হয় শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে। তবে এক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতি সত্যিই রেখেছেন মোদী-শাহেরা। বিজেপিতে নাম লেখাতেই জ্যোতিরাদিত্যকে রাজ্যসভার নির্বাচনে প্রার্থী করেছে বিজেপি।