স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এতদিন পর্যন্ত সারদা-কাণ্ডেই জেরা চলছিল কলকতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের। এবার রোজভ্যালি-কাণ্ডে তাঁকে তলব করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবারই তাঁকে দফতরে হাজিরা দিতে বলা হয়েছে।

তবে রাজীব কুমার এদিন সিবিআই দফতরে হাজির থাকতে পারবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। ২ সপ্তাহ সময় চেয়েছেন তিনি।

সারদা মামলায় রাজীব কুমারকে শিলংয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিবিআই। মামলা গড়ায় সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত। গ্রেফতারি এড়াতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন রাজীব কুমার। সুপ্রিম কোর্ট রাজীব কুমারকে গ্রেফতারি এড়াতে রক্ষাকবচ দেয়। গত ১৭ মে সেই রক্ষাকবচের মেয়াদ বাড়াতে অস্বীকার করে শীর্ষ আদালত। তাঁকে ৭ দিনের আইনি সুরক্ষা দেওয়া হয়েছে।

এরপর বারাসত আদালতে আগাম জামিনের আর্জি জানিয়ে মামলা করেন রাজীব কুমার। কিন্তু আবেদন ক্রুটিপূর্ণ হওয়ায় তা গৃহীত হয়নি।

সিবিআই-এর নোটিস খারিজের আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন রাজীব কুমার। এর আগে গত ২ জুলাই এই মামলার শুনানি ছিল। সেদিন রাজীবের গ্রেফতারির অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশের মেয়াদ বাড়ানোর নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি আশা অরোরার সিঙ্গল বেঞ্চ। কিছুটা হলেও স্বস্তি পান রাজীব কুমার। গত ১৭ জুলাই থেকে হাইকোর্টে টানা রাজীব কুমার মামালটি চলে।

এবার নতুন করে রোজভ্যালিকাণ্ডে রাজীব কুমারকে জেরা করতে চায় সিবিআই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.