স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: চিটফান্ড মামলায় প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে তলব করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ বৃহস্পতিবার সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সের দফতরে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছিল সিবিআই৷ তবে এদিন তিনি গরহাজির ছিলেন৷ পরিবর্তে রাজীব কুমারের প্রতিনিধি হিসেবে সিআইডির আধিকারিকরা একটি চিঠি নিয়ে সিবিআই দফতরে আসেন৷ সূত্রের খবর, ব্যস্ততার জন্য বৃহস্পতিবার তিনি হাজিরা দিতে পারবেন না বলে সময় চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে বলে ৷ ৩-৪ দিন সময় চাওয়া হয়েছে৷

অন্যদিকে, প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের আইনজীবী এদিন আদালতে একটি আবেদন করেন৷ তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, রাজীব কুমারের গ্রেফতারিতে স্থগিতাদেশের মেয়াদ আগামী সোমবার পর্যন্ত বাড়ানোর৷ কিন্তু কলকাতা হাইকোর্ট সেই আবেদন নাকচ করে দিয়েছে৷ তবে কিছুটা স্বস্তির বার্তা দিয়েছে আদালত৷ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত গ্রেফতারের উপর স্থগিতাদেশ ছিল৷ তা একদিন বাড়ানো হয়৷ ফলে আগামী শুক্রবার পর্যন্ত রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নিতে পারবে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷

তবে এর আগেও বেশ কয়েকবার রাজীব কুমার সিবিআই দফতরে গরহাজির ছিলেন৷ এবং প্রতি বারই কোনও না কোনও কারণ দেখিয়ে সময় চেয়ে নিয়েছেন৷ গ্রেফতারের উপর স্থগিতাদেশের সময় বাড়ানোর জন্যও বার বার কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন৷ শুধু সারদাই নয় রোজভ্যালি-কাণ্ডেও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ সেবারেও তিনি সিআইডির আধিকারিকদের পাঠিয়ে ছিলেন সিবিআই দফতরে৷ কিন্তু সিবিআই কোনও সময় না দেওয়ায়, সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সের সিবিআই দফতরে হাজির হয়েছিলেন রাজীব কুমার৷ সেদিন বেশ কয়েক ঘন্টা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিকরা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.