কলকাতা: প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছে কলকাতা হাইকোর্ট৷ এবার সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছে সিবিআই৷ আগামীকাল সোমবার ওই মামলার শুনানি হবে শীর্ষ আদালতে৷

সিবিআইয়ের অভিযোগ, সারদা মামলার তদন্তে রাজীব কুমার জিজ্ঞাসাবাদ এড়িয়ে যাচ্ছেন। তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ প্রয়োজন৷ কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টে তার আগাম জামিন মঞ্জুর হওয়ায়, সিবিআই প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারকে গ্রেফতার করতে পারছে না৷ এমনকি রাজীব কুমারকে সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাইলে ৪৮ ঘণ্টা আগে নোটিশ দিতে হবে ওই প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারকে৷

এবার কলকাতা হাইকোর্ট এর ওই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছে সিবিআই। আগামীকাল সোমবার ওই আবেদনের শুনানি হবে সুপ্রিম কোর্টে৷

প্রায় দু’মাস আগে সারদা মামলায় কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে শর্তসাপক্ষে তাঁর আগাম জামিন মঞ্জুর করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। ৫০ হাজার টাকা করে দুটো ব্যক্তিগত বন্ডে ওই আইপিএস আধিকারিকের জামিন মঞ্জুর করা হয়েছে।

সেদিনের রায়ে হাইকোর্ট জানিয়েছে, সবদিক খতিয়ে দেখে মনে করা হচ্ছে, রাজীব কুমারকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন নেই বলে মনে করছে আদালত। তাই তাঁর আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করা হল।

তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাক পেলে রাজীব কুমারকে হাজিরা দিতে হবে বলে রায়ে স্পষ্ট জানিয়েছে বিচারপতি সইদুল্লা মুন্সি ও শুভাশিস দাশগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ। তবে হাজিরার জন্য রাজীব কুমারকে ৪৮ ঘণ্টা সময় দিতে হবে বলে সিবিআইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

কলকাতা হাইকোর্টেও সিবিআই জানিয়েছিল, রাজীব কুমার জিজ্ঞাসাবাদ এড়িয়ে যাচ্ছেন। তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ প্রয়োজন বলে আদালতের কাছে আবেদনও জানিয়েছিল সিবিআই। কিন্তু সেদিন দীর্ঘ সওয়াল-জবাব শেষে আদালত সিবিআইয়ের আবেদন খারিজ করে রাজীবের আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করে। তখনই সিবিআই জানিয়েছিল, কলকাতা হাইকোর্টের এহেন নির্দেশিকাকে চ্যালেঞ্জ করে তারা সুপ্রিম কোর্টে যাবেন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.