ফাইল ছবি

কলকাতা:  যাকে ধরতে রীতিমত কালঘাম ছোটে সিবিআই আধিকারিকদের। ঠিক একমাসেরও বেশি সময় বাদে অজ্ঞাতবাস কাটিয়ে নিজেই প্রকাশ্যে এলেন। তিনি কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। গত একমাসেরও বেশি সময় ধরে রাজীবকে হন্যে হয়ে খুঁজে বেড়ায় সিবিআইয়ের আধিকারিকরা। প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারকে খুঁজতে বিশেষ দলও আসে কলকাতায়। কিন্তু বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে কোনও ট্রেসও পাননি তাঁরা। শেষমেশ খালি হাতেই তাঁদেরকে ফিরতে হয়। কিন্তু আগাম জামিন পেতেই সেই রাজীব কুমারই ‘মেঘনাথে’র ভূমিকা কাটিয়ে ফিরে এলেন।

আগাম জামিনের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে পঞ্চমীর সকালে আলিপুর আদালতে যান তিনি। এদিনের আগাম জামিনের ফলে আপাতত তাঁর গ্রেফতারির সম্ভাবনা রইল না।

প্রসঙ্গত গত কয়েকদিন আগে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করা হয়। মঞ্জুর করে কলকাতা হাইকোর্ট। সারদা রিয়ালিটি মামলায় আলিপুর আদালতে আগাম জামিনের আবেদন খারিজ হওয়ার পর হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন রাজীব কুমার। যদিও এর আগে একাধিকবার বহু নিম্ন আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি। কিন্তু সব জায়গাতেই ধাক্কা খান তিনি।

সিবিআই জানায়, রাজীব কুমার জিজ্ঞাসাবাদ এড়িয়ে যাচ্ছেন। তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ প্রয়োজন বলে আদালতের কাছে আবেদন জানায় সিবিআই। দীর্ঘ সওয়াল-জবাব শেষে আদালত সিবিআইয়ের আবেদন খারিজ করে রাজীবের আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করে। যদিও কলকাতা হাইকোর্টের এহেন নির্দেশিকাকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে সিবিআই। ইতিমধ্যে সমস্ত কাগজপত্রও তৈরি হয়ে গিয়েছে। সম্ভবত আজ বৃহস্পতিবারই এই মামলার আবেদন জানাতে পারে সিবিআই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.