স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শীর্ষ আদালতে আইপিএস অফিসার রাজীব কুমারের পেশ করা হলফনামায় সিবিআই, কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে করা অভিযোগের ভিত্তিতে পালটা আক্রমণাত্মক হল বিজেপি৷ বিজেপির বক্তব্য, রাজীব কুমারের অভিযোগের ভিত্তি হল টেলিফোনে কৈলাস-মুকুলের কথাবার্তার অডিও টেপ৷ কিন্তু কীভাবে রাজীব কুমার ওই অডিও টেপ পেয়েছেন? বিজেপির অভিযোগ কলকাতা পুলিশের কমিশনার হিসেবে তিনি বিজেপি নেতাদের টেলিফোন ‘ট্যাপ’ করিয়েছেন৷ যা অনৈতিক৷

সিবিআই এবং বিজেপির দুই নেতার নাম উল্লেখ করে, তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে বলে মুখ খুললেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার৷ এর কেন্দ্রে রয়েছে একটি অডিও ক্লিপ৷ যাকে হাতিয়ার করে নিজেকে ষড়যন্ত্রের শিকার বলে সোমবার সুপ্রিম কোর্টে একটি হলফনামা পেশ করেন তিনি৷ রাজীব বলেছেন ওই অডিও টেপ ‘পাবলিক ডমেনে’রয়েছে৷ রাজীবের অভিযোগের ভিত্তিতে বিজেপির সহসভাপতি, আইনজীবী জয়প্রকাশ মজুমদারের বক্তব্য, ‘‘রাজীব কুমার ওই অডিও পেলেন কোথা থেকে৷ তিনি কলকাতার পুলিশ কমিশনার ছিলেন৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে তিনি বিজেপি নেতার ফোন ট্যাপ করিয়েছেন৷’’

জয়প্রকাশ আরও বলেন, ‘‘কোনও এক ব্যক্তি অন্য কারও সঙ্গে কথা বলছেন৷ কারও বদনাম করছেন বা সুনাম করছেন৷ সেটা ব্যক্তিগত ব্যাপার৷ কিন্তু সেই বার্তালাপ ট্যাপ করে আদালতে তার উল্লেখ করা হাস্যকর৷ সুপ্রিম কোর্ট সিবিআই-কে বলেছে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে যা অভিযোগ আনা হয়েছে তা অত্যন্ত গুরুতর৷ তদন্তের দায়িত্বে সিবিআই৷ তদন্তকারী সংস্থা তার নিজের কাজ করছে৷ মাঝখানে বিজেপি কী করে আসছে?’’

জয়প্রকাশের বক্তব্য, ‘‘রাজীব সারদা মামলায় মূল অভিযুক্তদের ছেড়ে কুনাল ঘোষকে গ্রেফতার করেছেন৷ কুনাল বলেছেন, তাকে প্রতিহিংসার বসে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ এই অফিসারের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রমাণ নষ্টের অভিযোগ রয়েছে৷’’