স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনকে কেন্দ্র করে তৃণমূল- বিজেপি সংঘর্ষে দু’পক্ষের প্রায় ১০ জন জখম হল। রাজারহাট থানায় দু’পক্ষই অভিযোগ দায়ের করেছে। এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত ছ’জনকে আটক করেছে রাজারহাট থানার পুলিশ।

সোমবার রাজারহাট থানা এলাকার বাজেতরফ মিলন সংঘের দুর্গা প্রতিমার বিসর্জন ছিল। সেই সময় তৃণমূল ও বিজেপি-র মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। একপক্ষের দাবি, নিরঞ্জন এখনই হবে আর এক পক্ষের দাবি একটু দেরি করে করা হবে। সেই নিয়ে মারামারি শুরু হয়। তখনকার মতো পুলিশ অবস্থা সামাল দিলেও ওই ঘটনার জের টেনে একাদশীর দিন সকালে ফের দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায় দুই রাজনৈতিক দলের কর্মী সমর্থকরা।

রাজারহাটের বিজেপি নেতা প্রসেনজিৎ ঘোষ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তৃণমূলের দুষ্কৃতীদের হাতে বিজেপির আটজন কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁর বক্তব্য, বাড়ি ভাঙচুর এবং মারধর করা হয়েছে বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের।

বিজেপির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে রাজারহাট-নিউটাউন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি প্রবীর কর জানান, ভাসানকে কেন্দ্র করে পাড়ার মধ্যে একটি গন্ডগোল ঘটেছিল। সেটি সেই পাড়ার মধ্যেকার বিষয়। কিন্তু মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুর অঞ্চল সভাপতি তরণী নস্করের বাড়িতে হামলা চালায় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তরণীবাবুর ভাইয়ের হাত ভেঙে দেওয়া হয়। মারধর করা হয় বাড়ির মহিলাদেরও। তারপর স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা ঘটনাস্থলে হাজির হলে ফের একদফায় সংঘর্ষ শুরু হয়। যা সামলাতে ফের নামানো হয় পুলিশ বাহিনী।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।