বারাসত: চারদিন পরে ফের খুলল রাজা বিস্কুট কারখানা৷ স্থায়ী কর্মী ও শ্রমিকেরা আবেদনে কারখানা চালু করল কর্তৃপক্ষ৷

মঙ্গলবার সকালে সাসপেনশন অব ওয়ার্কের নির্দেশ তুলে নেয় কর্তৃপক্ষ৷ এবং পুনরায় কারখানা চালুর নোটিস দেওয়া হয়৷ ওইদিন সকাল থেকেই কাজে যোগ দিয়েছেন স্থায়ী কর্মী ও শ্রমিকেরা। তাঁদের সঙ্গে কিছু অস্থায়ী শ্রমিকও কাজে এসেছেন। চার দিন পরে কারখানা খোলায় খুশি কর্মী ও শ্রমিকেরা৷

রাজা বিস্কুট কারখানার জেনারেল ম্যানেজার সঞ্জয় চক্রবর্তী জানান, স্থায়ী কর্মীদের আবেদন ও স্থানীয় বিধায়কের হস্তক্ষেপের পরেই কারখানা খোলা হয়েছে। কী কারণে ঠিকাকর্মীদের একাংশ বহিরাগতদের নিয়ে গুণ্ডামি ও হামলা চালালেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়। আশা করব, অস্থায়ী কর্মীরাও সকলে সুষ্ঠু ভাবে কাজ দেবেন। আমরাও কারখানা পুরোদমে চালু করতে পারব৷

গত ৯ জানুয়ারি বারাকপুর শিল্পাঞ্চলে রাজা বিস্কুট কারখানায় তালা পড়ে। মালিক-শ্রমিক অসন্তোষের জেরে বন্ধ হয়ে যায় বিস্কুট কারখানা। সোদপুরে কারখানার গেটে লকআউট নোটিস ঝুলিয়ে দেয় মালিক কর্তৃপক্ষ। আচমকা কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কাজ হারিয়েছিলেন প্রায় দু’হাজার শ্রমিক।

অসন্তোষ চলছিল বহুদিন ধরেই। কারখানার শ্রমিকদের অভিযোগ, তাঁদের পাওনা টাকা নিয়ে মালিকপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে যান শ্রমিকদেরই দুই প্রতিনিধি। শ্রমিকদের কথা না শুনে উলটে তাঁদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে মালিকপক্ষের বিরুদ্ধে। দুই শ্রমিককে বরখাস্ত করে কারখানা কর্তৃপক্ষ। শ্রমিক স্বার্থে কথা বলতে গিয়ে কর্তৃপক্ষের এহেন আচরণে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন কারখানার বাকি শ্রমিকরা।

সেদিন সকালে অন্যান্য দিনের মতো সোদপুরের রাজা বিস্কুট কারখানায় কাজে যোগ দিতে যান শ্রমিকরা। তখনই কারখানার গেটে লকআউট নোটস ঝুলতে দেখেন শ্রমিকরা। মালিকপক্ষের আচমকা এই সিদ্ধান্তে দিশেহারা হয়ে পড়েন শ্রমিকরা। হঠাৎই কর্মহীন হয়ে পড়লেন কারখানার প্রায় ২ হাজার শ্রমিক।