পেশোয়ার: পাকিস্তানে রয়ে গিয়েছে বলিউডের কাপুর পরিবারের পৈত্রিক ভিটে। পেশোয়ার শহরে অবস্থিত কাপুর হাভেলি হল রাজ কাপুর পৃথ্বীরাজ কাপুরদের জন্মভিটে। কাপুরদের স্মৃতিচিহ্ন বিজড়িত এই বাড়িটি এবার ভেঙে ফেলা হতে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বাড়িটির বর্তমান মালিক হাজী ইসরার নামক এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী এটিকে ভেঙে একটি বাণিজ্যিক কমপ্লেক্স গড়ে তুলতে উদ্যোগী হয়েছেন।

১৯৪৭ সালে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর পেশোয়ার ছেড়ে ভারতে চলে এসেছিল কাপুর পরিবার। স্থানীয় মানুষের কাছে বলিউডের কাপুর পরিবারের এটি পৈতৃক ভিটে হল বেশ গর্বের বিষয় । যদিও ওই বাড়িটি রক্ষণাবেক্ষণ তেমন হতো না। ৯০ দশকে রণধীর এবং ঋষি কাপুর ওই বাড়িটি দেখতে গিয়েছিলেন। পরবর্তীকালে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি ঋষি কাপুরকে আশ্বাস দিয়েছিলেন পৃথ্বীরাজ কাপুরের বাবার তৈরি এই বাড়িটিকে একটি মিউজিয়ামে পরিণত করা হবে।

সেই উদ্দেশ্যে খাইবার প্রাখতুন প্রদেশের সরকার মিউজিয়াম করার উদ্দেশ্যে বাড়িটিকে কিনতে উদ্যোগী হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান মালিক সেটা বেচতে রাজি হয়নি। দাম নিয়ে দুপক্ষের দরাদরি চলে কারণ সরকার পাঁচ কোটি টাকায় কিনতে চাইলেও বর্তমান মালিক ওই দামে সেটি বেচতে চাননি।উল্টে তিনি প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন ভবনটিকে ভেঙে মার্কেট কমপ্লেক্স করার। এইজন্যে অবশ্য সেখানকার স্থানীয় হেরিটেজ দপ্তর তার নামে এফআইআর করেছে।

এদিকে কোনরকম রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে এখন ভবনটি ভেঙে পড়ার অবস্থায় রয়েছে। পেশোয়ারের ঢাকির নলবান্দি এলাকায় অবস্থিত এই বাড়িটি। ওই বাড়িটির পাশেই বাস করেন মুজিবর রহমান নামে এক ব্যক্তি। ৯০ দশকে যখন ঋষি কাপুররা ওই বাড়িটি দেখতে গিয়েছিলেন তখন এই মুজিবর রহমান একেবারে কিশোর। তিনিও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ঐতিহ্যশালী এই বাড়িটি রক্ষণাবেক্ষণের অভাবের জন্য। তাছাড়া ওখানকার কালচারাল হেরিটেজ কাউন্সিলের কর্তারাও ভবনটির এমন দশা হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ