বারাকপুর : দিন যত যাচ্ছে ততই ক্রমশ খারাপ হচ্ছে উত্তর ২৪ পরগণা জেলার করোনা পরিস্থিতি। হু-হু করে বাড়ছে সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা। এই অবস্থায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা করতে এবার বারাকপুর বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় স্টেডিয়ামকে সেমি কোভিড হাসপাতালে রুপান্তরিত করতে উদ্যোগ নিল প্রশাসন।

জানা গিয়েছে, উত্তর ২৪ পরগনা জুড়ে যেভাবে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বাড়ছে। সেই কথা মাথায় রেখে বারাকপুর বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় স্টেডিয়ামকে ২০০ শয্যা বিশিষ্ট সেমি কোভিড হাসপাতালে রূপান্তরিত করার চিন্তা ভাবনা নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা সারেন বারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী।

কারণ, করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে বারাকপুর স্টেডিয়ামকে বর্তমানে ২০ শয্যা বিশিষ্ট সেফহোম তৈরি করা হলেও পরবর্তীতে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা পরিষেবা দিতে এই সেফ হোমটিকে সেমি কোভিড হাসপাতালে রূপান্তরিত করার চিন্তাভাবনা করছে রাজ্যসরকার।

করোনা মোকাবিলায় সাধারন মানুষকে আরও বেশি পরিষেবা দিতে বারাকপুরের নব নির্বাচিত বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী শনিবার বারাকপুরের বি এন বসু হাসপাতালে একটি জরুরি বৈঠক করেন।

এই প্রশাসনিক বৈঠকে রাজ চক্রবর্তী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি ফাইনান্স ম্যানেজমেন্ট, ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট, সি এম ও এইচ নর্থ ২৪ পরগনা, জেলা শাসক, বারাকপুর ও টিটাগড়ের পুর প্রশাসক , বারাকপুর পুলিশ কমিশনার , বি এন বসু হাসপাতালের সুপার সহ প্রশনিক কর্তা ব্যক্তিরা।

উল্লেখ্য, রাজ্যে করোনা সংক্রমণ ফের রেকর্ড গড়েছে ৷ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৪৩৬ জন। মৃত্যু হল ১২৭ জনের । এই নিয়ে রাজ্যে মোট মৃত্যু হল ১২ হাজার ২০৩ জনের। শনিবার রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর প্রকাশিত বুলেটিন থেকে জানা গিয়েছে, এই মুহূর্তে রাজ্যে অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ২৫ হাজার ১৬৪। উত্তর ২৪ পরগনার করোনা পরিস্থিতি সবচেয়ে উদ্বেগজনক। শনিবারও এখানে দৈনিক সংক্রমণ ৩৯৮২, মৃত্যু হয়েছে ৩৯ জনের। এ নিয়ে রাজ্যে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ছাড়াল সাড়ে ৯ লক্ষ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.